৩শ শিল্প প্রতিষ্ঠানের ঋণের পরিমাণ ৭০ হাজার ৫৭১ কোটি টাকা (তালিকা)

0
ব্রেকিং নিউজ
  • আজ উদ্বোধন হচ্ছে বেনাপোল-ঢাকা ট্রেন বেনাপোল এক্সপ্রেস

                    আজ উদ্বোধন হচ্ছে বেনাপোল-ঢাকা ট্রেন বেনাপোল এক্সপ্রেস

                    আজ উদ্বোধন হচ্ছে বেনাপোল-ঢাকা ট্রেন বেনাপোল এক্সপ্রেস

.

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল ৫০ হাজার ৯৪২ কোটি টাকা ফেরত না দেয়া দেশের ৩০০ শীর্ষ ঋণখেলাপির তালিকা শনিবার সংসদে উপস্থাপন করেছেন।

ক্ষমতাসীন দলের সংসদ সদস্য ইসরাফিল আলমের টেবিলে উত্থাপিত এক লিখিত প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী এ তথ্য প্রকাশ করেন।

তিনি বলেন, এসব ঋণখেলাপি সরকারি ও বেসরকারি খাতের সব ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান থেকে ঋণ নিয়েছে।

মন্ত্রী জানান, এসব ঋণখেলাপির কাছে পাওনার পরিমাণ ৭০ হাজার ৫৭১ কোটি টাকা আর শ্রেণিকৃত ঋণের পরিমাণ ৫২ হাজার ৮৩৭ কোটি টাকা।

শীর্ষ ১০ ঋণ খেলাপি হলো- সামানাজ সুপার ওয়েল লিমিটেড (১ হাজার ৪৯ কোটি টাকা) গ্যালাক্সি সোয়েটার অ্যান্ড ইয়ার্ন ডাইং লিমিটেড (৯৮৪ কোটি টাকা), রিমেক্স ফুডওয়্যার লিমিটেড (৯৭৬ কোটি টাকা), কোয়ান্টাম পাওয়ার সিস্টেম লিমিটেড (৮২৮ কোটি টাকা), মাহিন এন্টারপ্রাইজ লিমিটেড (৮২৫ কোটি টাকা), রূপালী কম্পোজিট লেদার ওয়্যার লিমিটেড (৭৯৮ কোটি টাকা), ক্রিসেন্ট লেদার প্রোডাক্টস লিমিটেড (৭৭৬ কোটি টাকা), এসএ ওয়েল রিফাইনারি লিমিটেড (৭০৭ কোটি টাকা), সুপ্রভ কম্পোজিট নিট লিমিটেড (৬১০ কোটি টাকা) ও গ্রামীণ শক্তি (৬০১ কোটি টাকা)।

সেই সাথে পাঁচ কোটি টাকার বেশি ঋণ গ্রহীতাদের মধ্যে পাঁচ কোটি বা কম পাওনা থাকাদের তালিকাও প্রকাশ করেন মুস্তফা কামাল।

এ তালিকায় দেখা যায়, ২০০৯ সাল থেকে ১৪ হাজার ৬১৭ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান ১৭ লাখ ৪১ হাজার ৩৪৮ কোটি টাকা ঋণ নিয়েছে। খেলাপি হয়েছে ১ লাখ ১৮৩ কোটি টাকা।

ওয়ার্কার্স পার্টির সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য লুৎফুন নেসা খানের এক প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী জানান, ২০১৫ সালের সেপ্টেম্বরে ১ লাখ ১১ হাজার ৯৫৪ ঋণখেলাপির কাছে পাওনা ছিল ৫৯ হাজার ১০৫ কোটি টাকা। ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে এ সংখ্যা বেড়ে ১ লাখ ৭০ হাজার ৩৯০ ঋণখেলাপির কাছে পাওনা দাঁড়ায় ১ লাখ ২ হাজার ৩১৫ কোটি ১৯ লাখ টাকা।

তিনি নিয়ন্ত্রণের বাইরে থাকা দেশি-বিদেশি কারণের কথা উল্লেখ করেন, যাতে ব্যবসায়ী ও উদ্যোক্তারা আক্রান্ত হওয়ার ফলে ঋণখেলাপির সংখ্যা বেড়ে গেছে।

সেই সাথে মুস্তফা কামাল ভালো ঋণ গ্রহীতাদের বেছে না নেয়ার জন্য ব্যাংকগুলোকে দায়ী করেন।

ইসরাফিল আলমের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, মূলধনের ঘাটতি থাকা কিছু ব্যাংকে সরকার ২০১৫-১৬ থেকে ২০১৮-১৯ অর্থবছর পর্যন্ত ১৩ হাজার ৬১২ কোটি ৬০ লাখ টাকা দিয়েছে।

আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য হাজী মোহাম্মদ সেলিমের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, রাষ্ট্রায়ত্ত বাণিজ্যিক ও বিশেষায়িত ব্যাংকগুলো গত বছর ৬ হাজার ১৬৩টি ঋণের বিপরীতে ১ হাজার ১৯৮ কোটি ২৪ লাখ টাকা সুদ মওকুফ করেছে।

অগ্রণী ব্যাংক ২ হাজার ৮টি ঋণের বিপরীতে সর্বোচ্চ ৪৯৪ কোটি টাকা সুদ মওকুফ করে। সেই সাথে বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক ৬৬টি ঋণের বিপরীতে ৪৩৫ কোটি, রূপালী ব্যাংক ২০৩টি ঋণের বিপরীতে ১৩৪ কোটি, সোনালী ব্যাংক ১৪টি ঋণের বিপরীতে ৭৩ কোটি, জনতা ব্যাংক ২ হাজার ৪৭৩টি ঋণের বিপরীতে ৫৪ কোটি, রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক ১ হাজার ৩৮০টি ঋণের বিপরীতে ৪ কোটি ৩৫ লাখ ও বেসিক ব্যাংক ১৯টি ঋণের বিপরীতে ১ কোটি ৬৯ লাখ টাকা সুদ মওকুফ করে।

এ সময়ে বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক কোনো সুদ মওকুফ করেনি বলে জানান অর্থমন্ত্রী।

৩০০ শীর্ষ ঋণখেলাপির তালিকা দেখুন-

১. চট্টগ্রামের সামাননাজ সুপার অয়েল, এক হাজার ৪৯ কোটি টাকা

২. গাজীপুরের গ্যালাক্সি সোয়েটার অ্যান্ড ইয়ার্ন ডায়িং, ৯৮৪ কোটি টাকা

৩. ঢাকা সাভারের রিমেক্স ফুটওয়্যার, ৯৭৬ কোটি টাকা

৪. ঢাকার কোয়ান্টাম পাওয়ার সিস্টেম, ৮২৮ কোটি টাকা

৫. চট্টগ্রামের মাহিন এন্টারপ্রাইজ, ৮২৫ কোটি টাকা

৬. ঢাকার রূপালী কম্পোজিট,৭৯৮ কোটি টাকা

৭. ঢাকার ক্রিসেন্ট লেদার ওয়্যার,৭৭৬ কোটি টাকা

৮. চট্টগ্রামের এসএ অয়েল রিফাইনারি, ৭০৭ কোটি টাকা

৯. গাজীপুরের সুপ্রভ কম্পোজিট নিট, ৬১০ কোটি টাকা

১০. মিরপুর ঢাকার গ্রামীণ শক্তি, ৬০১ কোটি টাকা

১১. গাজীপুরের সৌরভ স্পিনিং লিমিটেড, ৫৮২ কোটি টাকা

১২. ঢাকার কম্পিউটার সোর্স লিমিটেড, ৫৭৫ কোটি টাকা

১৩. গাজীপুরের সিমরান কম্পোজিট লিমিটেড, ৫৬৪ কোটি টাকা

১৪. ঢাকার সাভারের মেক্স স্পিনিং মিলস, ৫২৬ কোটি টাকা

১৫. ঢাকার বেনট্যাক্স ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড, ৫২৩ কোটি টাকা

১৬. সাভারের আলপা কম্পোজিট টাওয়েলস লি., ৫২৩ কোটি টাকা

১৭. চট্টগ্রামের সিদ্দিক ট্রেডার্স, ৫১১ কোটি টাকা

১৮. চট্টগ্রামের রুবায়া ভেজিটেবল ওয়েল ইন্ড্রাস্ট্রিজ লিমিটেড, ৫০১ কোটি টাকা

১৯. চট্টগ্রামের রাইজিং স্টিল লিমিটেড, ৪৯৫ কোটি টাকা

২০. সাভারের আনোয়ার স্পিনিং মিলস, ৪৭৫ কোটি টাকা

২১. গাজীপুরের সৌরভ রোটর লিমিটেড, ৪৬৫ কোটি টাকা

২২. চট্টগ্রামের ইয়াসিন এন্টারপ্রাইজ, ৪৬৪ কোটি টাকা

২৩. নরসিংদীর বেসিক ইন্ডাস্ট্রিয়াল স্টেটের প্রতিষ্ঠান চৌধুরী নিটওয়্যার লিমিটেড, ৪৬২ কোটি টাকা

২৪. নারায়ণগঞ্জের রেনকা সোহেল কম্পোজিট টেক্সটাইল মিলস লিমিটেড, ৪৪৯ কোটি টাকা

২৫. হাজারিবাগের লেক্সকো লিমিটেড, ৪৩৯ কোটি টাকা

২৬. গাজীপুর টঙ্গীর জেকুয়ার্ড নিটেক্স লিমিটেড, ৪৩০ কোটি টাকা

২৭. গুলশানের ইব্রাহিম টেক্সটাইল লিমিটেড, ৩৭৩ কোটি টাকা

২৮. চট্টগ্রামের ম্যাক ইন্টারন্যাশনাল, ৩৭২ কোটি টাকা

২৯. বনানীর বাংলা লায়ন কমিউনিকেশন, ৩৭১ কোটি টাকা

৩০. মতিঝিলের বাংলাদেশ সুগার অ্যান্ড ফুড ইন্ড্রাস্ট্রিজ করপোরেশন, ৩৫২ কোটি টাকা

৩১. ঢাকা কাফরুলের হলমার্ক ফ্যাশন লিমিটেড, ৩৪১ কোটি টাকা

৩২. ঢাকার রাজউক এভিনিউ পদ্মা পলি কটন নিট ফ্যাব্রিক্স লিমিটেড, ৩৩১ কোটি টাকা

৩৩. চট্টগ্রামের গ্রান্ড ট্রেডিং এন্টারপ্রাইজ লিমিটেড, ৩২৪ কোটি টাকা

৩৪. গাজীপুরের ফেয়ার ট্রেড ফ্যাব্রিক্স লিমিটেড, ৩২২ কোটি টাকা

৩৫. মতিঝিলের গ্রাম বাংলা এনপিকে ফার্টিলাইজার অ্যান্ড অ্যাগ্রো ইন্ড্রাস্ট্রিজ, ৩১৮ কোটি টাকা

৩৬. ঢাকার শাহরিশ কম্পোজিট টাওয়েল লিমিটেড, ৩১৪ কোটি টাকা

৩৭. চট্টগ্রামের সেভেনবি এসোসিয়েটস, ৩০৯ কোটি টাকা

৩৮. ঢাকা মহাখালির রিউরাল সার্ভিস ফাউন্ডেশন, ৩০৬ কোটি টাকা

৩৯. মতিঝিলের সুরুজ মিয়া জুট স্পিনিং মিলস লিমিটেড, ৩০৪ কোটি টাকা

৪০. ঢাকার ফেয়ার ইয়ার্ন প্রসেসিং লিমিটেড, ২৯৬ কোটি টাকা

৪১. ঢাকার সেন্ট্রাল ইন্টারন্যাশনাল মেডিক্যাল কলেজ অ্যান্ড হসপিটাল লিমিটেড, ২৮৬ কোটি টাকা

৪২. ঢাকার রূপায়ন হাউজিং ইস্টেট লিমিটেড, ২৮০ কোটি টাকা

৪৩. চট্টগ্রামের এসকে স্টিল, ২৭১ কোটি টাকা

৪৪. চট্টগ্রামের মাবিয়া শিপ ব্রেকার্স লিমিটেড, ২৭১ কোটি টাকা

৪৫. ঢাকা মুন্নু ফেব্রিক্স লিমিটেড, ২৬৭ কোটি টাকা

৪৬. ঢাকার হেল্পলাইন রিসোর্স লিমিটেড, ২৫৮ কোটি টাকা

৪৭. গাজীপুরের ঢাকা ডায়িং অ্যান্ড ম্যানুফ্যাকচারিং লিমিটেড, ২৫৮ কোটি টাকা

৪৮. ঢাকার বিসমিল্লাহ টাওয়েলস লিমিটেড, ২৪৪ কোটি টাকা

৪৯. নারায়নগঞ্জের র‌্যানকা ডেনিম টেক্সটাইল মিলস লিমিটেড, ২২২ কোটি টাকা

৫০. চট্টগ্রামের তানিয়া এন্টারপ্রাইজ ইউনিট-২, ২১২ কোটি টাকা

৫১. চট্টগ্রামের এইচ স্টিল রিরোলিং মিলস লিমিটেড, ২০৯ কোটি টাকা

৫২. ঢাকার মতিঝিলের কেয়ার স্পেশালাইজড হসপিটাল অ্যান্ড রিসার্চ সেন্টার লিমিটেড, ২০৪ কোটি টাকা

৫৩. ঢাকার বাংলাদেশ ইন্ডাস্ট্রিয়াল ফিন্যান্স কোম্পানি লিমিটেড, ২০১ কোটি টাকা

৫৪. চট্টগ্রামের চিটাগাং সিন্ডিকেট, ১৯৮ কোটি টাকা

৫৫. ঢাকার টি অ্যান্ড ব্রাদার্স নীট কম্পোজিট লিমিটেড, ১৯৭ কোটি টাকা

৫৬. ঢাকার গ্লোব এডিবল অয়েল লিমিটেড, ১৯৭ কোটি টাকা

৫৭. গাজীপুরের এমএইচ গোল্ডেন জুটস মিলস লিমিটেড, ১৯৪ কোটি টাকা

৫৮. ঢাকার নর্থস এগ লিমিটেড, ১৯৪ কোটি টাকা

৫৯. দুবাইয়ের সিম্যাট সিটি জেনারেল ট্রেডিং লিমিটেড,১৯৩ কোটি টাকা

৬০. ঢাকার ইব্রাহিম কনসোডিয়াম লিমিটেড, ১৯২ কোটি টাকা

৬১. ঢাকার লামিসা স্পিনিং লিমিটেড, ১৯১ কোটি টাকা

৬২. রংপুরের অ্যাপেল সিরামিকস প্রাইভেট লিমিটেড, ১৮৯ কোটি টাকা

৬৩. ঢাকার আর আই এন্টারপ্রাইজ, ১৮৯ কোটি টাকা

৬৪. চট্টগ্রামের এমকে শিপ বিল্ডার্স অ্যান্ড স্টিলস লিমিটেড, ১৮৫ কোটি টাকা

৬৫. চট্টগ্রামের মাহমুদ ফেব্রিক্স অ্যান্ড ফিনিশিং লিমিটেড, ১৮৪ কোটি টাকা

৬৬. ঢাকার কটন করপোরেশন, ১৮৪ কোটি টাকা

৬৭. ঢাকার এম বি এ গার্মেন্টস অ্যান্ড টেক্সটাইল লিমিটেড, ১৮৩ কোটি টাকা

৬৮. ঢাকার সিক্স সিজনস অ্যাপার্টমেন্ট লিমিটেড, ১৮৩ কোটি টাকা

৬৯. চট্টগ্রামের ন্যাশনাল স্টিল, ১৮৩ কোটি টাকা

৭০. ঢাকার ক্যাপিটাল বোর্ড লিমিটেড, ১৮২ কোটি টাকা

৭১. ঢাকার ইউনাইটেড এয়ারওয়েজ (বিডি) লিমিটেড, ১৮০ কোটি টাকা

৭২. ঢাকার করলা করপোরেশন বিডি লিমিটেড, ১৭৮ কোটি টাকা

৭৩. ঢাকার এক্সপার টেক লিমিটেড, ১৭৬ কোটি টাকা

৭৪. ঢাকার ব্লু ইন্টারন্যাশনাল, ১৭৫ কোটি টাকা

৭৫. চট্টগ্রামের সাফারি ট্রেডার্স, ১৭৪ কোটি টাকা

৭৬. ঢাকার আমাদের বাড়ি লিমিটেড, ১৭৩ কোটি টাকা

৭৭. সাভারের ওয়ালম্যাট ফ্যাশন লিমিটেড, ১৭০ কোটি টাকা

৭৮. ঢাকার অ্যাগ্রো ইন্ডাজট্রিজ প্রাইভেট লি., ১৬৮ কোটি টাকা

৭৯. নরসিংদীর শব মেহের স্পিনিং মিলস লিমিটেড, ১৬৮ কোটি টাকা

৮০. গাজীপুরের সুপ্রভ মেলাঙ্গ স্পিনিং মিলস, ১৬৭ কোটি

৮১. ঢাকার সেগুনবাগিচার হিমালয় পেপার অ্যান্ড বোর্ড মিলস, ১৬৬ কোটি টাকা
৮২. ঢাকার গুলশানের লিবার্টি ফ্যাশন অয়ারস লিমিটেড, ১৬৪ কোটি টাকা

৮৩. সাভারের ক্রিসেন্ট ট্যানারিস লিমিটেড, ১৬৩ কোটি টাকা

৮৪. নরসিংদীর চৌধুরী টাওয়েল প্রাইভেট লিমিটেড, ১৬৩ কোটি টাকা

৮৫. ঢাকার হাজারীবাগের চৌধুরী লেদার্স অ্যান্ড কোম্পানি লিমিটেড, ১৬২ কোটি টাকা

৮৬. ঢাকার দিলকুশা এলাকার ইসলাম ট্রেডিং কনসোর্টিয়াম লিমিটেড, ১৫৬ কোটি টাকা

৮৭. ঢাকার মতিঝিলের এপেক্স নিট কম্পোজিট লিমিটেড, ১৫৬ কোটি টাকা

৮৮. ঢাকার যাত্রাবাড়ীর আব্দুল্লাহ স্পিনিং মিলস, ১৫৫ কোটি টাকা

৮৯. ঢাকার উত্তরার আনোয়ারা মান্নান টেক্সটাইল মিলস লিমিটেড, ১৫৩ কোটি টাকা

৯০. চট্টগ্রামের সগির অ্যান্ড ব্রাদার্স, ১৫৩ কোটি টাকা

৯১. চট্টগ্রামের আগ্রাবাদের মাস্টার্ড ট্রেডিং, ১৫২ কোটি টাকা

৯২. রাজশাহীর ইসলাম ব্রাদার্স অ্যান্ড কোম্পানি, ১৫২ কোটি টাকা

৯৩. ঢাকার বারিধারার হিন্দুল ওয়ালি টেক্সটাইল লিমিটেড, ১৫২ কোটি টাকা

৯৪. ঢাকার মতিঝিলের আরিয়ান কেমিক্যালস লিমিটেড, ১৫১ কোটি টাকা

৯৫. ঢাকার গুলশানের ওয়ান ডেনিম মিলস লিমিটেড, ১৫১ কোটি টাকা

৯৬. চট্টগ্রামের আগ্রাবাদের মুহিব স্টিল অ্যান্ড শিপ রি-সাইক্লিং, ১৫০ কোটি টাকা

৯৭. ঢাকার ইস্কাটনের গ্লোব মেটাল কমপ্লেক্স, ১৫০ কোটি টাকা

৯৮. ঢাকার ধানমন্ডির এরশাদ ব্রাদার্স করপোরেশন, ১৪৯ কোটি টাকা

৯৯. চট্টগ্রামের খাতুনগঞ্জের জালাল অ্যান্ড সন্স, ১৪৯ কোটি টাকা

১০০. ঢাকার ধানমণ্ডির বিশ্বাস গার্মেন্টস লিমিটেড, ১৪৯ কোটি টাকা

১০১. চট্টগ্রামের পাহাড়তলীর সৈয়দ ফুডস লিমিটেড, ১৪৫ কোটি টাকা

১০২. ঢাকার কারওয়ান বাজারের এইচআরসি শিপিং লিমিটেড, ১৪৪ কোটি টাকা

১০৩. জয়দেবপুরের আলী পেপার মিলস লিমিটেড, ১৪৩ কোটি টাকা

১০৪. চট্টগ্রামের খাতুনগঞ্জের রহমান শিপ ব্রেকার্স লিমিটেড, ১৪২ কোটি টাকা

১০৫. ঢাকার আর কে মিশন রোডের ড্রিডজ বাংলা প্রাইভেট লিমিটেড, ১৪২ কোটি টাকা

১০৬. ঢাকার দিলকুশার ফারইস্ট স্টকস অ্যান্ড বন্ডস লিমিটেড, ১৩৯ কোটি টাকা

১০৭. ঢাকার ফাইবার সাইন লিমিটেড, ১৩৮ কোটি টাকা

১০৮. ঢাকার অরনেট সার্ভিস লিমিটেড, ১৩৭ কোটি টাকা

১০৯. খুলনার মজিবর রহমান খান, ১৩৬ কোটি টাকা

১১০. চট্টগ্রামের জাহিদ এন্টারপ্রাইজ লিমিটেড, ১৩৪ কোটি টাকা

১১১. চট্টগ্রামের তাবাসসুম এন্টারপ্রাইজ, ১৩৩ কোটি টাকা

১১২. ঢাকার এপেক্স ওয়েবিংস অ্যান্ড ফিনিসিং মিলস লিমিটেড, ১৩০ কোটি টাকা

১১৩. ঢাকার মিশন ডেভেলপমেন্ট লিমিটেড, ১৩০ কোটি টাকা

১১৪. ঢাকার তালুকদার ইউপিভিসি ফিটিংস ইন্ড্রাস্ট্রিজ লিমিটেড, ১৩০ কোটি টাকা

১১৫. গাজীপুরের অ্যাননটেক্স নীট টেক্স লিমিটেড, ১২৯ কোটি টাকা

১১৬. ঢাকার দ্য ওয়েল টেক্স লিমিটেড, ১২৯ কোটি টাকা

১১৭.ঢাকার ডেল্টা সিস্টেমস লিমিটেড, ১২৮ কোটি টাকা

১১৮.খুলনার এফ আর জুট ট্রেডিং, ১২৮ কোটি টাকা

১১৯. গাজীপুরের গেট নীট টেক্স লিমিটেড, ১২৮ কোটি টাকা

১২০. গাজীপুরের জে ওয়াই বি নীট টেজ লিমিটেড, ১২৮ কোটি টাকা

১২১. ঢাকার জারা নীট টেক্স লিমিটেড, ১২৭ কোটি টাকা

১২২. খুলনার সোনালী জুট মিলস লিমিটেড, ১২৭ কোটি টাকা

১২৩. চট্টগ্রামের সামাননাজ কনডেন্সড মিল্ক লিমিটেড, ১২৭ কোটি টাকা

১২৪. চট্টগ্রামের জুমা এন্টারপ্রাইজ, চট্টগ্রাম, ১২৬ কোটি টাকা

১২৫. ঢাকার রেফকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, ১২৬ কোটি টাকা

১২৬. গাজীপুরের স্ট্রাইজার কম্পোজিট লিমিটেড, ১২৫ কোটি টাকা

১২৭. ঢাকার শফিক স্টিল, ১২২ কোটি টাকা

১২৮. ঢাকার স্টাইলো ফ্যাশন গার্মেন্টস লিমিটেড, ১২১ কোটি টাকা

১২৯. রাজশাহীর সুগার মিলস লিমিটেড, ১২১ কোটি টাকা

১৩০. শেরপুরের এমারালড ওয়েল ইন্ড্রাস্ট্রিজ লিমিটেড, ১২১ কোটি টাকা

১৩১. ঢাকার লাকী শিপ বিল্ডার্স লিমিটেড, ১২০ কোটি টাকা

১৩২. চট্টগ্রামের মীম এন্টারপ্রাইজ, ১২০ কোটি টাকা

১৩৩. নোয়াখালীর আল আমীন বেভারেজ ইন্ড্রাস্ট্রিজ লিমিটেড, ১২০ কোটি টাকা

১৩৪. গাজীপুরের এফ কে নীট টেক্স লিমিটেড, ১১৯ কোটি টাকা

১৩৫. ঢাকার ম্যাপ পেপার বোর্ড মিলস লিমিটেড, ১১৯ কোটি টাকা

১৩৬. ঢাকার অটবি লিমিটেড, ১১৮ কোটি টাকা

১৩৭. ঢাকার হিলফুল ফুজুল সমাজ কল্যাণ সংস্থা, ১১৮ কোটি টাকা

১৩৮. খুলনার এ কে জুট ট্রেডিং কোম্পানি, ১১৭ কোটি টাকা

১৩৯. চট্টগ্রামের মনোয়ারা ট্রেডিং, ১১৭ কোটি টাকা

১৪০. চট্টগ্রামের চিটাগাং ইস্পাত, ১১৭ কোটি টাকা

১৪১. ঢাকার টেকনো ডিজাইন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট লিমিটেড, ১১৬ কোটি টাকা

১৪২. গাজীপুরের আলভী নীট টেক্স লিমিটেড, ১১৬ কোটি টাকা

১৪৩. খুলনার এফ আর জুট মিলস লিমিটেড, ১১৪ কোটি টাকা

১৪৪. নারায়ণগঞ্জের টেক্সটাইল ভারতোসো, ১১৪ কোটি টাকা

১৪৫. চট্টগ্রামের ম্যাক শিপ বিল্ডার্স লিমিটেড, ১১৪ কোটি টাকা

১৪৬. ঢাকার মিরপুরের ওয়েস্টিন হাউজিং লিমিটেড, ১১৩ কোটি টাকা

১৪৭. ঢাকার গুলশানের এমবিইসি-পিবিএল-জেভি, ১১৩ কোটি টাকা

১৪৮. গাজীপুরের টঙ্গীর সিমি নিট টেক্স লিমিটেড, ১১৩ কোটি টাকা

১৪৯. ঢাকার মহাখালীর এলায়েন অ্যাপারেল লিমিটেড, ১১৩ কোটি টাকা

১৫০. কুমিল্লার নাঙলকোটের স্পিনিং নিট টেক্স লিমিটেড, ১১২ কোটি টাকা

১৫১. ঢাকার ক্যান্টনমেন্টের প্রফিউসন টেক্সটাইলস লিমিটেড, ১১২ কোটি টাকা

১৫২. চট্টগ্রামের সাউথ ইস্টার্ন পেপার মিলস লিমিটেড, ১১১ কোটি টাকা

১৫৩. ঢাকার উত্তরার মা টেক্স, ১১১ কোটি টাকা

১৫৪. ঢাকার নয়া পল্টনের সিদ্দিক অ্যান্ড কো.লিমিটেড, ১১০ কোটি টাকা

১৫৫. চট্টগ্রামের কনফিডেন্স সুজ লিমিটেড, ১০৮ কোটি টাকা

১৫৬. চট্টগ্রামের আহমেদ মুজতবা স্টিল ইন্ডাস্ট্রিজ, ১০৮ কোটি টাকা

১৫৭. চট্টগ্রামের শাপলা ফ্লাওয়ার মিলস, ১০৮ কোটি টাকা

১৫৮. খুলনার আবদুর রাজ্জাক লিমিটেড, ১০৭ কোটি টাকা

১৫৯. চট্টগ্রামের হাবিব স্টিলস লিমিটেড, ১০৬ কোটি টাকা

১৬০. গাজীপুরের সর্দার অ্যাপারেলস লিমিটেড, ১০৬ কোটি টাকা

১৬১. ঢাকা ক্রিয়েটিভ ট্রেড, ১০৬ কোটি টাকা

১৬২. ফরিদপুরের ক্রিস্টাল স্টিলস অ্যান্ড শিপ ব্রেকিং লিমিটেড, ১০৫ কোটি টাকা

১৬৩. চট্টগ্রামের সুপার ‍সিক্স স্টার শিপ ব্রেকিং ইয়ার্ড, ১০৫ কোটি টাকা

১৬৪. চট্টগ্রামের জেড অ্যান্ড জে ইন্টারন্যাশনাল, ১০৫ কোটি টাকা

১৬৫. ঢাকার কক্স ডেভেলপার লিমিটেড, ১০৫ কোটি টাকা

১৬৬. চট্টগ্রামের এস শিপিং লাইন, ১০৪ কোটি টাকা

১৬৭. নারায়ণগঞ্জের জাবা টেক্সটাইল মিলস লিমিটেড, ১০৩ কোটি টাকা

১৬৮. ঢাকার মোহাম্মদপুরের সেনটার ফর অ্যাসেসটেড রি-প্রডাকশন (প্রা.) লি., ১০৩ কোটি টাকা

১৬৯. ঢাকার বিতরণী ট্রেডার্স, ১০৩ কোটি টাকা

১৭০. চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডের শীতল এন্টারপ্রাইজ, ১০২ কোটি টাকা

১৭১. ঢাকার ধানমন্ডির প্রাইস ক্লাব জেনারেল ট্রেডিং লিমিটেড, ১০২ কোটি টাকা

১৭২. ঢাকার নিউ অটো ডিফাইন, ১০২ কোটি টাকা

১৭৩. চট্টগ্রামের অনিকা এন্টারপ্রাইজ, ১০১ কোটি টাকা

১৭৪. ঢাকার এআরএসএস এন্টারপ্রাইজ, ১০১ কোটি টাকা

১৭৫. চট্টগ্রামের গোল্ডেন হরিজন লিমিটেড, ১০০ কোটি টাকা

১৭৬. বগুড়ার জয়পুরহাট সুগার মিলস লিমিটেড, ১০০ কোটি টাকা

১৭৭. ঢাকার বনানীর ডুসাই হোটেল অ্যান্ড রিসোর্স লিমিটেড, ১০০ কোটি টাকা

১৭৮. নরসিংদীর মোবারক আলী স্পিনিং মিলস লিমিটেড, ৯৯ কোটি টাকা

১৭৯. গাজীপুরের কেয়া কসমেটিকস লিমিটেড, ৯৯ কোটি টাকা

১৮০. খুলনার রেজা জুট ট্রেডিং, ৯৯ কোটি টাকা

১৮১. ঢাকার মগবাজারের আরকে ফুডস লিমিটেড, ৯৮ কোটি টাকা

১৮২. ঢাকার মতিঝিলের মিমকো জুট মিলস (কম্পোজিট)লিমিটেড, ৯৮ কোটি টাকা

১৮৩. ঢাকার মিরপুরের আরডেন্ট সিস্টেমস, ৯৮ কোটি টাকা

১৮৪. ঢাকার টেক্স নিট ইন্টারন্যাশনাল, ৯৬ কোটি টাকা

১৮৫. চট্টগ্রামের বিইএনজেড ইন্ডাস্ট্রিজ (বিডি)লিমিটেড, ৯৬ কোটি টাকা

১৮৬. চট্টগ্রামের মাস শিপ রিসাইক্লিং ইন্ডাস্ট্রিজ, ৯৬ কোটি টাকা

১৮৭. ঢাকার সাভারের বাংলাদেশ ড্রেস লিমিটেড, ৯৬ কোটি টাকা

১৮৮. চট্টগ্রামের মোহাম্মদ ইলিয়াস ব্রাদ্রার্স (প্রা.)লিমিটেড, ৯৫ কোটি টাকা

১৮৯. চট্টগ্রামের জয়নাব ট্রেডিং কোং লি., ৯৫ কোটি টাকা

১৯০. কুমিল্লার ওয়েসিস হাইটেক স্পোর্টসওয়্যার লিমিটেড, ৯৪ কোটি টাকা

১৯১. চুয়াডাঙ্গার ক্রু অ্যান্ড কোং (বিডি)লিমিটেড, ৯৪ কোটি টাকা

১৯২. ঢাকার ফিয়াজ এন্টারপ্রাইজ, ৯৪ কোটি টাকা

১৯৩. নারায়ণগঞ্জের এখলাস স্পিনিং মিলস লিমিটেড, ৯৩ কোটি টাকা

১৯৪. ঢাকার ফাহমি নিটওয়্যার লিমিটেড, ৯২ কোটি টাকা

১৯৫. নরসিংদীর জেঅ্যান্ডজে ফেব্রিক্স টেক্সটাইল লিমিটেড, ৯২ কোটি টাকা

১৯৬. ঢাকার আর বি এন্টারপ্রাইজ, ৯২ কোটি টাকা

১৯৭. ঢাকার অনলাইন প্রপার্টিজ লিমিটেড, ৯২ কোটি টাকা

১৯৮. ঢাকার ফাহমি ওয়াশিং প্ল্যান্ট লিমিটেড, ৯০ কোটি টাকা

১৯৯. ঢাকার রামিসা ট্রেডিং, ৮৯ কোটি টাকা

২০০. ঢাকার ল্যান্ডমার্ক ফেব্রিক্স লিমিটেড, ৮৮ কোটি টাকা

২০১. চট্টগ্রামের এসকে এন্টারপ্রাইজ, ৮৮ কোটি টাকা

২০২. ঢাকার শিপান শিপিং লাইন লিমিটেড, ৮৮ কোটি টাকা

২০৩. ঢাকার সুপ্রিম জুট অ্যান্ড নিটেক্স লিমিটেড, ৮৮ কোটি টাকা

২০৪. চট্টগ্রামের ফরচুন স্টিল, ৮৭ কোটি টাকা

২০৫. চট্টগ্রামের মোস্তফা অয়েল প্রোডাক্টস লিমিটেড, ৮৬ কোটি টাকা

২০৬. মেসার্স হাবিবুল ইসলাম, ঢাকা, ৮৬ কোটি টাকা

২০৭. মাবিয়া স্টিল কমপ্লেক্স লিমিটেড,চট্টগ্রাম, ৮৬ কোটি টাকা

২০৮. ঢাকার পদ্মা অ্যাগ্রো ট্রেডার্স, ৮৬ কোটি টাকা

২০৯. রাজশাহীর আমান ট্রেডিং করপোরেশন, ৮৫ কোটি টাকা

২১০. গাজীপুরের পলিমার নিটওয়্যার ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড, ৮৫ কোটি টাকা

২১১. জামালপুরের এমারাল্ড অটো ব্রিকস লিমিটেড, ৮৫ কোটি টাকা

২১২. ঢাকার ম্যাজেস্টিকা হোল্ডিং লিমিটেড, ৮৫ কোটি টাকা

২১৩. ঢাকার ওয়েফা এন্টারপ্রাইজ, ৮৪ কোটি টাকা

২১৪. ঢাকার দেশবন্ধু সুগার মিলস লিমিটেড, ৮৪ কোটি টাকা

২১৫. ঢাকার মনিকা ট্রেডিং ইন্টারন্যাশনাল, ৮৩ কোটি টাকা

২১৬. ঢাকার এসএ ট্রেডার্স, ঢাকা, ৮৩ কোটি টাকা

২১৭. ঢাকার দ্যা অ্যারিস্টোক্রেট অ্যাগ্রো লিমিটেড, ৮৩ কোটি টাকা

২১৮. ঢাকার ইউরোপা বেভারেজ অ্যান্ড ফুডস লিমিটেড, ৮৩ কোটি টাকা

২১৯. ঢাকার ফ্যাশন ক্র্যাফ্ট নিটওয়্যার লিমিটেড, ৮৩ কোটি টাকা

২২০. গাজীপুরের অ্যাটলাস গ্রিনপ্যাক লিমিটেড, ৮৩ কোটি টাকা

২২১. ঢাকার এমারাল্ড স্পেশালাইজড কোল্ড স্টোরেজ লিমিটেড, ৮৩ কোটি টাকা

২২২. খুলনার শাহনেওয়াজ জুট মিলস (প্রাইভেট)লিমিটেড, ৮২ কোটি টাকা

২২৩. ঢাকার এমএএআর লিমিটেড, ৮২ কোটি টাকা

২২৪. ঢাকার ড্রেস মি ফ্যাশন লিমিটেড, ৮২ কোটি টাকা

২২৫. চট্টগ্রামের মোহাম্মদ ইলিয়াস ব্রাদার্স পয় ম্যানুফেক্চারিং প্ল্যান্ট লিমিটেড, ৮১ কোটি টাকা

২২৬. নারায়ণগঞ্জের শাহিল ফ্যাশনস লিমিটেড, ৮১ কোটি টাকা

২২৭. ঢাকার ফস্টার রিয়েল এস্টেট লিমিটেড, ৮১ কোটি টাকা

২২৮. চট্টগ্রামের ইমাম ট্রেডার্স, ৮১ কোটি টাকা

২২৯. ঢাকার এসএমএএইচ লিমিটেড, ৮০ কোটি টাকা

২৩০. ঢাকার গ্লোব জনকণ্ঠ শিল্প পরিবার লিমিটেড, ৮০ কোটি টাকা

২৩১. ঢাকার ফিয়াজ এন্টারপ্রাইজ, ৮০ কোটি টাকা

২৩২. ঢাকার এম-নূর সোয়েটার্স লিমিটেড, ৭৯ কোটি টাকা

২৩৩. ঢাকার খান সন্স টেক্সটাইল লিমিটেড, ৭৯ কোটি টাকা

২৩৪. চট্টগ্রামের ঝুমা এন্টারপ্রাইজ, ৭৯ কোটি টাকা

২৩৫. নরসিংদীর এন.এইচ.কে.ফেব্রিকস অ্যান্ড টেক্সটাইল, ৭৮ কোটি টাকা

২৩৬. চট্টগ্রামের গ্রান্ডার শিপিং লাইন্স লিমিটেড, ৭৮ কোটি টাকা

২৩৭. ঢাকার এস.রিসোর্সেস শিপিং লাইন লিমিটেড, ৭৮ কোটি টাকা

২৩৮. চট্টগ্রামের নর্থপোল বি.ডি লিমিটেড, ৭৮ কোটি টাকা

২৩৯. ঢাকার অ্যাভান্সড ডেভেলপমেন্ট টেকনোলজিস লিমিটেড, ৭৮ কোটি টাকা

২৪০. ইউরোকারস হোল্ডিংস প্রাইভেট লিমিটেড, সিঙ্গাপুর, ৭৮ কোটি টাকা

২৪১. ঢাকার এসএফজি শিপিং লাইন লিমিটেড,৭৭ কোটি টাকা

২৪২. ঢাকার সোলারেন ফাউন্ডেশন,৭৭ কোটি টাকা

২৪৩. ঢাকার অ্যাটলাস ফুড অ্যান্ড বেভারেজ লিমিটেড, ৭৭ কোটি টাকা

২৪৪. চট্টগ্রামের এমএএফ নিউজপ্রিন্ট মিলস লিমিটেড, ৭৭ কোটি টাকা

২৪৫. ঢাকার এফএএস ফিন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড, ৭৭ কোটি টাকা

২৪৬. ঢাকার ইনফরমেশন সল্যুশনস লিমিটেড, ৭৭ কোটি টাকা

২৪৭. ঢাকার বিশ্বাস টেক্সটাইল লিমিটেড, ৭৬ কোটি টাকা

২৪৮. গাজীপুরের গ্লোব ইনসেকটাইডস লিমিটেড,৭৬ কোটি টাকা

২৪৯. ঢাকার এশিয়ান ফুড ট্রেডিং অ্যান্ড কোম্পানি, ৭৬ কোটি টাকা

২৫০.চট্টগ্রামের শারিজা ওয়েল রিফাইনারি লিমিটেড, ৭৬ কোটি টাকা

২৫১. ঢাকার ওশান নিট বাংলাদেশ, ৭৬ কোটি টাকা

২৫২. ঢাকার ব্রাদার্স এন্টারপ্রাইজ, ৭৬ কোটি টাকা

২৫৩. ঢাকার নাবিল টেক্সটাইল মিলস লিমিটেড, ঢাকা, ৭৬ কোটি টাকা

২৫৪. নারায়ণগঞ্জের ঢাকা ডেনিম লিমিটেড, ৭৫ কোটি টাকা

২৫৫.চট্টগ্রামের এমআর শিপিং লাইন, ৭৫ কোটি টাকা

২৫৬. নারায়ণগঞ্জের এমএমএসবি টেক্সটাইল মিলস লিমিটেড, ৭৫ কোটি টাকা

২৫৭. ঢাকার বিল্ডট্রেড ইঞ্জিনিয়ারিং লিমিটেড, ৭৫ কোটি টাকা

২৫৮. ঢাকার কবির এন্টারপ্রাইজ, ৭৫ কোটি টাকা

২৫৯. ফেনীর দেশ জুয়েলার্স, ৭৪ কোটি টাকা

২৬০.ঢাকার লোহজং ট্রেড ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেড, ৭৪ কোটি টাকা

২৬১. ঢাকার বাধন ফুড ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড, ৭৪ কোটি টাকা

২৬২. ঢাকার ইনফ্রাটেক কনসট্রাকশন কোম্পানি, ৭৪ কোটি টাকা

২৬৩. গাজীপুরের প্রিটি সোয়েটার্স লিমিটেড, ৭৪ কোটি টাকা

২৬৪. ঢাকার ওয়েলপ্যাক পলিমার্স লিমিটেড, ৭৪ কোটি টাকা

২৬৫. ঢাকার ঐশী ইন্টারন্যাশনাল, ৭৪ কোটি টাকা

২৬৬. ঢাকার বারিধারার ফস্টার ট্রেডিং ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেড, ৭৪ কোটি টাকা

২৬৭. ঢাকার সুরমা স্টিল অ্যান্ড স্টিল ট্রেডিং কোম্পানি, ৭৪ কোটি টাকা

২৬৮. ঢাকার ইব্রাহিম কম্পোসিট টেক্সটাইল মিলস লিমিডেট, ৭৪ কোটি টাকা

২৬৯. ঢাকার নর্থ সাউথ স্পিনিং মিলস লিমিটেড, ৭৩ কোটি টাকা

২৭০. নারায়ণগঞ্জের ইউসান নিট কম্পোজিট লিমিডেট, ৭৩ কোটি টাকা

২৭১. চট্টগ্রামের এহসান স্টিল রিরোলিং মিলস লিমিটেড, ৭৩ কোটি টাকা

২৭২. ঢাকার ঢাকা অ্যালুমিনিয়াম ওয়ার্কস লিমিটেড, ৭৩ কোটি টাকা

২৭৩. চট্টগ্রামের শাহাদাত এন্টারপ্রাইজ, ৭৩ কোটি টাকা

২৭৪. যশোরের এম.কে ট্রেড ইন্টারন্যাশনাল, ৭৩ কোটি টাকা

২৭৫. ঢাকার হল মার্ক স্পিনিং মিলস লিমিটেড, ৭২ কোটি টাকা

২৭৬. ঢাকার অ্যাজাক্স জুট মিলস লিমিটেড, ৭২ কোটি টাকা

২৭৭. চট্টগ্রামের শাহেদ শিপ ব্রেকিং, ৭২ কোটি টাকা

২৭৮. চাঁপাইনবাবগঞ্জের রুম্মান অ্যান্ড ব্রাদার্স, ৭২ কোটি টাকা

২৭৯. ঢাকার রোজবার্গ রাইস মিলস লিমিটেড, ৭১ কোটি টাকা

২৮০. ঢাকার এএসটি বেভারেজ লিমিটেড, ৭১ কোটি টাকা

২৮১. নারায়ণগঞ্জের মিনটেক্স ফ্যাশন লিমিটেড, ৭১ কোটি টাকা

২৮২. রংপুর জুট মিলস, রংপুর, ৭১ কোটি টাকা

২৮৩. ঢাকার রোজবার্গ ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড, ৭১ কোটি টাকা

২৮৪. ঢাকার সিপিএম কম্পোসিট নিট (প্রাইভেট) লিমিটেড, ৭০ কোটি টাকা

২৮৫. ঢাকার হানজালা টেক্সটাইল পার্ক লিমিটেড, ৭০ কোটি টাকা

২৮৬. চট্টগ্রামের ইস্টার্ন করপোরেশন, ৭০ কোটি টাকা

২৮৭. ঢাকার ফিনকলি অ্যাপারেলস লিমিটেড, ৭০ কোটি টাকা

২৮৮. যশোরের জয়েন্ট ট্রেডারর্স, ৭০ কোটি টাকা

২৮৯.চট্টগ্রামের ন্যাশনাল আয়রন অ্যান্ড স্টিল ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড, ৬৯ কোটি টাকা

২৯০. ঢাকার ইকো ব্রিক লিমিটেড, ৬৯ কোটি টাকা

২৯১. যশোরের তালুকদার প্লাস্টিক কোম্পানি লিমিটেড, ৬৯ কোটি টাকা

২৯২. ঢাকার বিএনএস ইন্টারন্যাশনাল কোম্পানি, ৬৯ কোটি টাকা

২৯৩. ঢাকার অ্যাপোলো ইস্পাত কমপ্লেক্স লিমিটেড, ৬৯ কোটি টাকা

২৯৪. ঢাকার টেকো প্লাস্ট ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড, গাজীপুর, ৬৯ কোটি টাকা

২৯৫. ঢাকার ওশিন স্পিনিং মিলস লি., ৬৯ কোটি টাকা

২৯৬. ঢাকার ক্লাসিক সাপ্লাইস লি. (ইউনিট-২), ৬৯ কোটি টাকা

২৯৭. ঢাকার সৈয়দ ট্রেডার্স, ৬৯ কোটি টাকা

২৯৮. গাজীপুরের উইসটেরিয়া টেক্সটাইলস লিমিটেড, ৬৯ কোটি টাকা

২৯৯. ঢাকার নোবেল কটন স্পিনিং মিলস লিমিটেড, ৬৮ কোটি টাকা

৩০০. চট্টগ্রামের আলী এন্টারপ্রাইজ, ৬৮ কোটি টাকা।  সুত্রঃ ইউএনবি

কোন মন্তব্য নেই