এই মধু আসলেই খাঁটি তো!

0
.

আমাদের সুস্থতায় ও রূপচর্চায় মধুর ব্যবহার করে থাকি। আসলে উপকারগুলো আমরা তখনই পাই যখন মধুটি হয় খাঁটি। কেনার পর অনেক সময়ই সন্দেহ থেকেই যায় মধুটি আসলেই খাঁটি তো! এই সন্দেহ দূর করতে হলে চিনতে হবে আসল মধু। কীভাবে? জেনে নিন:

নকল মধু…
• নকল মধুতে ফেনা হয়
• একটু টকটক গন্ধ থাকে বা গন্ধ তেমন ভালো হয় না
• বেশ পাতলা হয়
• তলানিটা খসখসে থাকে
• স্তরগুলো আলাদা করা যায়।

আর মধু খাঁটি হলে:
• সামান্য আঙ্গুলে নিন, এর ঘনত্ব দেখুন। আসল মধু অনেক বেশি আঠালো হবে।
• একগ্লাস পানিতে মধু ড্রপ আকারে ছেড়ে দিন, খাঁটি মধু ড্রপ অবস্থায়ই গ্লাসের নিচে চলে যাবে।
• মধুতে পিঁপড়া ধরবে না
• দীর্ঘদিন থাকলেও মধুর নিচে জমাট বাঁধবে না।

কেন মধুর এত কদর, কারণ:
• মধুর সাথে দারুচিনির গুঁড়ো মিশিয়ে খেলে তা রক্তনালীর বিভিন্ন সমস্যা দূর হয় এবং রক্তনালী পরিষ্কার করতে সাহায্য করে

• শরীরে শক্তি যোগায় এবং শরীরকে কর্মক্ষম রাখে

• নিয়মিত মধু খেলে লিভার পরিষ্কার থাকে, শরীরের বিষাক্ত উপাদানগুলো বের করে দেয় এবং শরীরের মেদ গলে বের হয়ে যায়
• ওজন নিয়ন্ত্রণে থাকে
• শীতে ঠাণ্ডা-কাশি সারাতে সাহায্য করে মধু
• ত্বক রাখে কোমল-উজ্জ্বল-ব্রণ ও দাগহীন, তারুণ্য ধরে রাখে
• চুল হয় ঝলমলে সুন্দর।

মধুতে প্রায় ৪৫টিও বেশি খাদ্য উপাদান থাকে। তবে এতে সাধারণত কোনো চর্বি ও প্রোটিন নেই। প্রতি ১০০ গ্রাম মধু থেকে অামরা পাই ৩০৪ ক্যালরি।

কোন মন্তব্য নেই