সবই দেই!

0
.

রিপা কোথায় ঘুরতে যাচ্ছে, খেতে যাচ্ছে-বন্ধুদের সঙ্গে বা পরিবারে কি কথা হচ্ছে, এমন কি অফিসে কারও ওপর মন খারাপ হলেও শেয়ার করছেন ফেসবুকে। ফেসবুকের অবস্থান এখন আর অস্বীকার করার সুযোগ আমাদের নেই। তবে…

আমরা সুন্দর কোনো ছবি দিয়ে বা কথা লিখে যেমন সবার ভালোবাসা ও প্রশংসা পা‍ই। ঠিক তেমনি ফেসবুকে পোস্টের বিষয়ে সচেতন না হলে হতে পারে সমালোচনাও।

আমাদের প্রতিদিনের চিন্তা, রুচি ও অবস্থানের পরিচয় পাওয়া যায় আমাদের ফেসবুক ওয়াল দেখেই।

বিশেষজ্ঞদের মতে, কিছু শেয়ার করার আগে অবশ্যই একবার ভেবে নিতে হবে, কাউকে আঘাত করা হচ্ছে কি না, দেশের স্বার্থ ও নিরাপত্তার জন্য হুমকি কি না, আর একান্ত ব্যক্তিগত বিষয় কি না।

এসব তো মাথায় রাখতেই হবে, সঙ্গে আরও যে বিষয়গুলো ভাবতে হবে:

• বাড়ির ঠিকানা, নিজের মোবাইল ফোন নম্বর এসব কাউকে দিতে হলে ইনবক্সে দিন। ওয়ালে নয়

• কত টাকা বেতন পান? এটা তো সবার জানার প্রয়োজন নেই

• মেইল, ফেসবুক বা ব্যাংক কার্ডের পাসওয়ার্ড কখনোই শেয়ার করা যাবে না

• আপনি যদি কোনো সেলিব্রেটি হন বা আপনার যদি কোনো শত্রু আছে বলে মনে করেন, তবে এই মুহূর্তে কোথায় আছেন তা না জানানোই ভালো

• যেমন একটি রেস্ট্রুরেন্টে খেতে গেলেন, গিয়েই ছবি বা ঠিকানা দিয়ে চেক ইন দেবেন না।
• ফিরে গিয়ে বা বের হয়ে ছবি দিতে পারেন
• ‍
• কেউ বিশ্বাস করে কোনো গুরুত্বপূর্ণ তথ্য আপনাকে জানিয়েছে, এটা কখনো পোস্ট করা যাবে না

• ঘুরতে যাচ্ছেন? একই কথা, আগে জানানো নয়…

• ধর্মীয় এবং রাজনৈতিক পোস্ট দিতে অবশ্যই সচেতন থাকতে হবে

• আইন শৃঙ্খলা ও ‍আদালতের বিষয়েও একটু ভেবে নিতে হবে কিছু লেখার আগে

• ধরুন কোথাও খেতে গেলেন কয়েক বন্ধু।এদের মধ্যে একজন চাইছেন না, ছবিগুলো পোস্ট করতে, তার চাওয়াকে সম্মান দিন, এগুলো নিজেদের মধ্যেই সুন্দর স্মৃতি হয়ে থাক

• পরিবার, বন্ধু বা কলিগ কারো অনুমতি ছাড়া তাদের ব্যক্তিগত কোনো তথ্য কোনো ধরনের সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে দেয়া যাবে না।

আমাদের জন্য যোগাযোগের জন্য পুরো পৃথিবী হাতের মুঠোয় চলে এসেছে। এখান থেকে ভালো অনেক অর্জন আসতে পারে, আবার অসচেতনতায় ঘটতে পারে বিপত্তিও, সচেতন থেকে যোগাযোগের মুক্ত আকাশে উড়ে বেড়ান।

কোন মন্তব্য নেই