কর্মজীবী নারীর জন্য

0
.

কর্মজীবী নারীদের সময়ের সত্যি বড় অভাব। অনেকেই বলেন দিন ২৪ ঘণ্টায় না হয়ে আরও আটঘণ্টা হলে ভালো হত। সংসার সামলে অফিসের কাজ করে আবার নিজের জন্য সময় বের করার কথা পড়তে যত ভালো লাগে, বাস্তবে বের করা অতটা সহজ নয়।

তারপরও সুস্থ থাকতে কোনো অজুহাত নয়, মাত্র ১০-১৫ মিনিট নিজের জন্য রাখতেই হবে, যদি দীর্ঘদিন সুস্থ থাকতে চান। আর এই সময়টা দিতে হবে ব্যায়ামে। কীভাবে?

যারা সারাদিন ব্যস্ত থাকেন, ঘরের কাজ করেন তাদের কিন্তু এমনিতেই বেশ পরিশ্রম হয়ে ‍যায়, এরপর আবার ঘড়ি ধরে টানা একঘণ্টা জিমে গিয়ে ব্যায়াম করার বা দৌড়ানোর প্রয়োজন হয় না।

হাঁটা আর সাঁতার কাটা হচ্ছে সব থেকে ভালো ব্যায়াম। তবে সাঁতার কাটার জায়গা পাওয়া তো সহজ নয়, সবার জন্য। এজন্য ভরসা হাঁটায়, টানা হাঁটার জন্যও যদি জায়গা না থাকে, তাহলে একটি ট্রেডমিল কিনে নিতে পারেন।

ট্রেডমিলে ১০ মিনিটের ব্যায়ামই যথেষ্ট। অবশ্য এ সময়ে তিন থেকে পাঁচ পাউন্ডের দুটি ডাম্বেল দুই হাতে রাখতে পারেন।

স্বাভাবিক হার্টবিট প্রতি মিনিটে সাধারণত ৭৫ থেকে ৮৫ হয়। এর চেয়ে কম হলে বুঝতে হবে আপনি সামর্থ্য অনুযায়ী কাজ করছেন না। এর চেয়ে বেশি হওয়ার অর্থ আপনি সামর্থ্যের তুলনায় বেশি কাজ করছেন। হার্টবিট কেমন হচ্ছে কয়েকদিন লক্ষ্য করুন, বেশি তারতম্য হলে বা একটুতেই হাঁপিয়ে গেলে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

অফিসে অনেকেই পানি পান করনে না, বা খুব অল্প পরিমাণে পান করেন, এতে শরীর পানিশূন্যতা দেখা দিতে পারে। নিয়মিত বিরতিতে পর্যাপ্ত পানি পান করতে হবে।

একটা বিষয় মনে রাখতে হবে, শুধু ওজন কমানোর প্রয়োজনেই ব্যায়াম করা গুরুত্বপূর্ণ নয়। সুস্থতা ও ফিট থাকার জন্যও নিয়মিত শারীরিক পরিশ্রম প্রয়োজন।

কোন মন্তব্য নেই