গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধি করায় চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির প্রতিবাদ
সরকারী লুটপাটের ঘাটতি মেটাতেই গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধি

0
.

সরকার আবারও নতুন করে ৩২.০৮ শতাংশ বাড়িয়েছে গ্যাসের দাম। এই দাম অনুযায়ী এক চুলার জন্য গ্রাহকদের ৭৫০ টাকার স্থলে ৯২৫ টাকা এবং ডাবল চুলার গ্রাহকদের ৮০০ শ টাকার স্থলে ৯৭৫ টাকা করে দিতে হবে। গ্রাহক পর্যায়ে গ্যাসের এই মূল্য বৃদ্ধি করায় চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সভাপতি ডাঃ শাহাদাত হোসেন, সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম বক্কর ও সিনিয়র সহ-সভাপতি আবু সুফিয়ান তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

আজ ১ জুলাই সোমবার এক যুক্ত বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির সাথে সাথে মানুষের জীবন যাত্রার ব্যয় আরো একদাপ বেড়ে যাবে। নিস্ম ও মধ্যবিত্ত আয়ের মানুষগুলোকে জীবন চালাতে হিমশিম খেতে হবে। বেড়ে যাবে শিল্প ও বিদ্যুৎ উৎপাদন ব্যয়। পরিবহন ভাড়া বাড়বে। যার বিরূপ প্রভাব পড়বে অর্থনীতির সকল সূচকে। সরকার দলীয় লুটেরাদের মহা লুটপাটের ঘাটতি মেটাতেই গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধি করা হয়েছে উল্লেখ করে নেতৃবৃন্দ বলেন, গত ১০ বছরে গ্যাসের দাম বাড়ানো হয়েছে ৬ বার। গ্যাসের এই মূল বৃদ্ধির ফলে দুর্নীতির মাধ্যমে ক্ষমতাসীন দলের লুটপাটের সুযোগ সৃষ্টি হবে। চারিদিকে নৈরাজ্য ও হাহাকার ছাড়া এই সরকার জনগণকে আর কিছু দিতে পারেনি।

জনগণের ভোটে নির্বাচিত নয় বলেই অবৈধ সরকার প্রতিটি ক্ষেত্রে গণবিরোধী সিদ্ধান্ত গ্রহণে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। সাধারণ মানুষের জীবন জীবিকা বিপর্যস্ত করতেই গ্যাসের এই মূল্য বৃদ্ধি করা হয়েছে। শুধুমাত্র লুটপাটের জন্য বেআইনীভাবে গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধি করা হয়েছে, যা সম্পূর্ণ অযৌক্তিক ও মনুষ্যত্বহীন পদক্ষেপ। নেতৃবৃন্দ বলেন, দেশের মানুষকে শোষণের যন্ত্রে পরিণত করেছে মধ্য রাতের নির্বাচনের সরকার। উচ্চ বিলাসী বাজেটে নতুন অর্থ বছরের পরিকল্পনা অনুযায়ী এল এন জি আমাদানীতে ১৮ হাজার ২শত ৭০ কোটি টাকার ঘাটতি তৈরী হবে। এই ঘাটতি মেটাতেই গ্যাসের দাম বাড়িয়ে সাধারণ ভোক্তাদের পকেট থেকে এই টাকা তোলা হবে। নেতৃবৃন্দ বলেন, সরকার বিদ্যুৎ উৎপাদন বৃদ্ধির দাবী করলেও চট্টগ্রামসহ সারাদেশে বিদ্যুতের লোডশেডিংয়ের ভোগান্তিতে জনগণ অতিষ্ট হয়ে উঠেছে। বিদ্যুৎ উৎপাদনের নামে মেঘা প্রকল্প গ্রহণ করে ক্ষমতাসীনরা মেঘা লুটপাট করেছে। তাই আজ বিদ্যুতের এই বেহাল অবস্থা।

চট্টগ্রাম ওয়াসা পানির মূল্য বৃদ্ধির পাঁয়তারা করছে। গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধি ফলে বিদ্যুতের দামও বাড়বে। বাড়বে কল কারখানার উৎপাদন খরচও। গ্যাসের দাম বাড়ানোর কারণে সব ধরনের শিল্প প্রতিষ্ঠান ক্ষতিগ্রস্ত এবং বিনিয়োগ বাধাগ্রস্ত হবে। নেতৃবৃন্দ বলেন, গণবিরোধী গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত থেকে সরকারকে সরে আসতে হবে। অন্যথায় এ সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে চট্টগ্রামবাসীকে সাথে নিয়ে তীব্র আন্দোলন গড়ে তোলা হবে।

এদিকে গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে কেন্দ্রঘোষিত বিক্ষোভ সমাবেশ আগামীকাল ২ জূলাই মঙ্গলবার বিকাল ৩ টায় নাসিমন ভবন্থ দলীয় কার্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত হবে।

কোন মন্তব্য নেই