হিন্দু অভিনেত্রীদের উচিত জায়রা থেকে প্রেরণা নেয়া: হিন্দুসভা প্রধান

1
.

পাঁচ বছরের জনপ্রিয়তাকে উপেক্ষা করে অভিনয় জগত ছাড়ার ঘোষণা দিয়েছেন দঙ্গল সিনেমায় আমির খানের সঙ্গে অভিনয় করা কাশ্মীরি কিশোরী জায়রা ওয়াসিম। ভারতের জাতীয় পুরস্কারজয়ী তরুণ এ অভিনেত্রী অভিনয় ছাড়ার কারণ হিসেবে ‘ঈমান’ বা ধর্মবিশ্বাসের কথা জানিয়েছিলেন।

বলিউড ছাড়ার ঘোষণার পর সোশ্যাল মিডিয়ায় জায়রা ওয়াসিমের পক্ষে-বিপক্ষে চলছে নানা আলোচনা-সমালোচনা। এরই মধ্যে ভারতের হিন্দু মহাসভা প্রধান স্বামী চক্রপাণি জায়রার প্রশংসা করেছেন।

দঙ্গলকন্যা জায়রা ওয়াসিমকে অনুসরণ করে হিন্দু অভিনেত্রীদেরও অভিনয় ছাড়ার ‘পরামর্শ’ দিয়েছেন তিনি।

টুইটারে দেয়া এক পোস্টে স্বামী চক্রপাণি বলেন, অভিনেত্রী জায়রার সিনেমা ছাড়ার সিদ্ধান্ত প্রশংসনীয়। হিন্দু অভিনেত্রীদেরও উচিত তার কাছ থেকে প্রেরণা নেয়া।

অবশ্য হিন্দু ধর্ম ও সংস্কৃতির সঙ্গে অভিনয় কীভাবে বা কেন সাংঘর্ষিক, সে সম্পর্কে কিছুই বলেননি স্বামী চক্রপাণি।

গত রোববার ইনস্টাগ্রামে দেয়া এক পোস্টে অভিনয় থেকে নিজেকে সরিয়ে নেয়ার ঘোষণা দেন ‘দঙ্গলকন্যা’ খ্যাত কাশ্মীরি কিশোরী জায়রা ওয়াসিম।

অভিনয় ছাড়ার কারণ হিসেবে ভারতের জাতীয় পুরস্কারজয়ী তরুণ এ অভিনেত্রী জানান, সিনেমা কিংবা তারকা-জীবন ধর্মবিশ্বাস বা ‘ঈমান’ থেকে তাকে ক্রমশ দূরে ঠেলে দিচ্ছিল।

২০১৬ সালে আমির খানের সঙ্গে ‘দঙ্গল’ ছবিতে অভিনয় করেন জায়রা ওয়াসিম। এটাই ছিল তার ডেব্যু ফিল্ম। এত কম বয়সে তার অভিনয় দক্ষতা অত্যন্ত প্রশংসিত হয়।

ফিল্মফেয়ার অ্যাওয়ার্ড, ন্যাশনাল ফিল্ম অ্যাওয়ার্ড-ন্যাশনাল চাইল্ড অ্যাওয়ার্ড ফর একসেপশনাল অ্যাচিভমেন্ট পেয়েছেন জায়রা। সূত্র: ডন নিউজ

প্রথম মন্তব্য

  1. আসলে আমি মনে করি যারা এই অভিনয়ের সাথে জড়িত(সবাই নয় 90%) তাদের নিজস্ব কোনো ধর্ম থাকে না। তাদের কি হিন্দু , কি মুসলিম এরা আসলে এই জাগতিক পৃথিবীকে ভোগ করার জন্যই এই পৃথিবীতে আসে। আর আমরা কিছু আবাল আছি যারা এই সব নায়িক নায়িকাদের ধর্মিয় জীবন নিয়ে বেশি ঘাটাঘাটি করি। তবে জায়রা ঠিক কাজই করেছে বলে আমার মনে হয়। তবে সবাই কি জারা হতে পারবে?