বাংলাদেশীদের টাকা-পয়সা কেড়ে নিচ্ছে ভারতের কাস্টমস কর্মকর্তারা!

6
ব্রেকিং নিউজ
  • *প্রিয়া সাহার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের মামলা করবেন ব্যারিস্টার সুমন

                    *প্রিয়া সাহার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের মামলা করবেন ব্যারিস্টার সুমন

.

বেনাপোল প্রতিনিধিঃ
বেনাপোলের ওপারে ভারতের পেট্রাপোল কাস্টমসে বাংলাদেশী পাসপোর্টধারী যাত্রীরা নানাভাবে হয়রানী হচ্ছে মর্মে  অভিযোগ উঠেছে।  পকেটে হাত দিয়ে জোর করে টাকা কেড়ে নিচ্ছে এমন অভিযোগ করছেন বাংলাদেশি যাত্রীরা।

টাকা দিতে অস্বীকার কিংবা তর্কে জড়িয়ে পড়লে পাসপোর্ট কেড়ে নিয়ে ঘন্টার পর ঘন্টা বসিয়ে রাখা কিংবা কারো কারো ক্ষেত্রে পুলিশে দেবার ভয় দেখানো হচ্ছে বলে ভারত ফেরত একাধিক ভুক্তভোগী যাত্রী জানিয়েছেন।

ভারত ফেরত পাসপোর্ট যাত্রী বাবু দত্ত বলেন, গত ৫ জুলাই ভারতে যাবার পথে পেট্রাপোল কাস্টমস তল্লাশী কেন্দ্রে পৌছানোর পর কাস্টস অফিসার পকেট থেকে ম্যানিব্যাগ বের করতে বলেন। সেটি হাতে নিয়ে ব্যাগ থেকে সব টাকা বের করে গোননা করার পর তিনি বলেন, ১৭ হাজার টাকা নেয়া যাবে না। কেন জানতে চাইলে তাকে থানার ভয় দেখিয়ে ৫০০০ হাজার টাকা রেখে দিয়ে বাকি টাকা ফেরত দিয়ে দেয়।

পিরোজপুরের সুশীল ফেরত আসে ৮ জুলাই। তার কাছ থেকে ৩২০০০ টাকা ছিল। কাস্টমস ৭ হাজার রেখে বাকী টাকা ফেরত দেয়। একই দিন ঢাকার পাসপোর্ট যাত্রী শায়লা বেগম বলেন, কেনাকাটা এবং ঘুরাঘুরির পর ভারতীয় ৬ হাজার টাকা ছিল। সে টাকা সব কেড়ে নেবার পরও বাংলাদেশী ১ হাজার টাকা জোর করে নিয়ে নেয়। কেন জোর করে টাকা নেয়া হচ্ছে এমন প্রতিবাদ করলে তাকে প্রায় ২ ঘন্টা বসিয়ে রাখা হয়।

এ ব্যাপারে বেনাপোল কাস্টমসের সহকারী কর্মকর্তা উত্তম চাকমা বলেন, এ ধরনের ঘটনা ঘটে থাকলে তা দুঃখজনক। আমাদেরকে এ ব্যাপারে কোন যাত্রী লিখিত ভাবে জানালে আমরা পেট্রাপোল কাস্টমসের উদ্ধর্তন কর্মকর্তাকে বিষয়টি জানাবো এবং প্রতিকারের ব্যবস্থা নেবার জন্য চাপ প্রয়োগ করবো।

6 মন্তব্য

  1. অতি সত্য কথা আমি তার দৃষ্টান্ত প্রমাণ। ইন্ডিয়ান কাস্টমস মানিব্যাগ বের করে টাকাগুলো বের করে নেয় মনে হয় ওর বাপের টাকা।