রপ্তানী বিঘ্নিত হওয়ার আশঙ্কা
চট্টগ্রামে জলজট ও যানজটে উদ্বিগ্ন বিজিএমইএ

1
.

চট্টগ্রামে লাগাতার ভারী বৃষ্টির কারণে সৃষ্ট জলবদ্ধতা এবং চট্টগ্রাম শহর থেকে পতেঙ্গা বিমান বন্দর সড়কে ৪ দিন ধরে লাগাতার যানজটের কারণে ব্যবসা বাণিজ্য বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে বলে জানিয়েছেন পোষাক তৈরী শিল্পের সংগঠন বিজিএমইএ।

আজ শনিবার এক বিবৃতিতে বিজিএমইএ নেতৃবৃন্দ বলেন, অবিরাম বর্ষণে চট্টগ্রাম এখন জলাবদ্ধ নগরী। রাস্তাঘাটের ভঙ্গুর অবস্থা। তীব্র যানজটে বেহাল নগরীর স্বাভাবিক জীবনযাত্রা- বিপর্যন্ত ব্যবসা-বাণিজ্য। বিশেষ করে বন্দর, আইসিডি মুখী রাস্তা সহ বিমান বন্দর সড়কের তীব্র যানজটের কারণে রপ্তানীমুখী তৈরী পোশাক শিল্পের কন্টেইনার সময় মতো আইসিডিতে পৌঁছানো যাচ্ছে না। জলাবদ্ধতার কারণে, পোশাক শিল্প কারখানার শ্রমিক কর্মচারী কর্মকর্তারা সময়মতো কর্মস্থলে উপস্থিত হতে পারছেন না।

.

শ্রমিকদের আবাসস্থল বিশেষ করে নিচু এলাকা পানিতে ডুবে যাওয়ায় অনেকে অসুস্থ হয়ে কারখানায় হাজির হতে পারছে না, ফলে বিঘ্নিত হচ্ছে উৎপাদন।  অনেক কারখানার নীচ তলায় পানি উঠে যাওয়ায় জেনারেটর সহ ও অন্যান্য মেশিনারী জলমগ্ন হয়ে নষ্ট হয়ে যাওয়ার উপক্রম। বন্দর থেকে আমদানী পণ্য সময়মত কারখানায় পৌঁছতে না পারায় ক্ষেত্র বিশেষে ফ্লোর বন্ধ রাখতে হচ্ছে। এক কথায় চট্টগ্রামের তৈরী পোশাক শিল্পের উৎপাদন কার্যক্রম স্থবির হয়ে পড়েছে।

বিজিএমইএর অতিরিক্ত সচিব মোহাম্মদ মহসীন চৌধুরী স্বাক্ষরিত বিবৃতিতে বলা হয়, বিদেশী ক্রেতাগণের বেঁধে দেওয়া লীড টাইমের মধ্যে রপ্তানী পণ্যবাহী কন্টেইনার যথা সময়ে জাহাজীকরণ না হলে রপ্তানী আদেশ বাতিল সহ উদ্যোক্তগণকে বিপুল আর্থিক ক্ষতির সম্মুখনি হতে হবে মর্মে আশংকা প্রকাশ করেন বিজিএমইএ নেতৃবৃন্দ। তারা এক বিবৃতিতে এমন দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ায় বন্দর সংলগ্ন রাস্তা ও অন্যান্য সড়ক গুলিতে যত্রতত্র খুঁড়াখুঁড়ি বন্ধ রেখে আমদানী-রপ্তানী কার্যক্রম সচল রাখতে সহায়তা করার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানান।

প্রথম মন্তব্য