কক্সবাজার শেখ কামাল স্টেডিয়াম যেন মনোরম নৈসর্গিক পরিবেশ

0
sports-cricket-shekh-kamal-cricket-stadium-skcs-pic-481x330
নৈসর্গিক পরিবেশে নির্মিত কক্সবাজারের শেখ কামাল স্টেডিয়াম।

মনোরম নৈসর্গিক পরিবেশে নির্মিত কক্সবাজারের শেখ কামাল স্টেডিয়ামে, আন্তর্জাতিক ম্যাচ আয়োজন করা হলে মাঠ যেমন পুরোপুরি দর্শক পূর্ণ থাকবে, তেমনি এই মাঠের মাধ্যমে বাংলাদেশ সারা বিশ্বের কাছে পরিচিত হয়ে উঠবে বলে মনে করেন বিসিবির গ্রাউন্ডস এন্ড ফ্যাসিলিটিজ কমিটির ম্যানেজার আব্দুল বাতেন। এছাড়া, এশিয়ার মধ্যেও এটি অন্যতম একটি মাঠ হবে বলে মনে করেন জাতীয় দলের সাবেক ক্রিকেটার’রা।

screenshot_5
মুদ্রের কোল ঘেঁষে মনোরম পরিবেশে ৪৮ একর জায়গার উপর নির্মাণ করা হয়েছে শেখ কামাল ক্রিকেট স্টেডিয়াম।

দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকত হিসেবে সারা বিশ্বেই পরিচিত কক্সবাজার। প্রতি বছর হাজার, হাজার পর্যটক সাগরের নৈসর্গিক সৌন্দর্য উপভোগ করতে আসেন এখানে। আর সমুদ্রের কোল ঘেঁষে মনোরম পরিবেশে ৪৮ একর জায়গার উপর নির্মাণ করা হয়েছে শেখ কামাল ক্রিকেট স্টেডিয়াম।

maxresdefault
মূল মাঠের সঙ্গে রয়েছে দুটি একাডেমি মাঠ ও একটি প্যাভিলিয়ন।

যেখানে মূল মাঠের সঙ্গে রয়েছে দুটি একাডেমি মাঠ ও একটি প্যাভিলিয়ন। ২০১৪ সালে এর কার্যক্রম শুরু হলেও এখনো অনুষ্ঠিত হয়নি কোনো আন্তর্জাতিক ম্যাচ ।

তবে অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের ১৭টি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়েছিল সাগর পাড়ের এই স্টেডিয়ামে। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট আয়োজনের মাধ্যমে এই মাঠের সারা বিশ্বের কাছে পরিচিত হয়ে উঠবে এমনটাই বিশ্বাস বিসিবির গ্রাউন্ডস কমিটির ম্যানেজার সৈয়দ আব্দুল বাতেনের।

screenshot_4
সমুদ্রের কোল ঘেঁষে মনোরম পরিবেশে ৪৮ একর জায়গার উপর নির্মাণ করা হয়েছে শেখ কামাল ক্রিকেট স্টেডিয়াম।

মাঠকে কেন্দ্র করে ঝাউবনের মনোরম প্রাকৃতিক সৌন্দর্য আর সমুদ্রের গর্জনে অন্য রকম আবহ সৃষ্টি করেছে সাগর পাড়ের এই স্টেডিয়ামে। আর এই মাঠ এশিয়ার মধ্যে অন্যতম একটি মাঠ হবে বলে মনে করেন জাতীয় দলের সাবেক ক্রিকেটাররা।

তবে অতি শীঘ্রই মাঠের আধুনিক ড্রেনেজ সিস্টেম, জিমনেশিয়াম, একাডেমিক ভবন, মিডিয়া সেন্টার ও সুইমিং পুলের কাজ শুরু করা হবে বলে জানালেন গ্রাউন্ডস কমিটির ম্যানেজার আব্দুল বাতেন। এই মাঠে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট আয়োজন করা হলে বাংলাদেশের পর্যটন শিল্প অনেক এগিয়ে যাবে বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা। সুত্র: সময় টিভি

কোন মন্তব্য নেই