“গুজব ছড়াবেন না, ছেলে ধরা সন্দেহ হলে পুলিশের হাতে তুলে দিন”

3
.

গুজব ছড়াবেন না, আইন নিজের হাতে তুলে নেবেন না’ ছেলে ধরা সন্দেহ হলে পুলিশের হাতে তুলে দিন। আজ রবিবার (২১ জুলাই) সকাল থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত জগন্নাথপুর থানা পুলিশের উদ্যোগে সতর্কীকরণ করণ বার্তা উপজেলার বিভিন্ন স্থানে মাইকিং করে এমন প্রচারণা চালানো হয়েছে।

জগন্নাথপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মো: ইখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানান, “পদ্মা সেতুর জন্য মানুষের মাথা ও রক্ত লাগবে” এই গুজবকে কেন্দ্র করে সম্প্রতি দেশের বিভিন্ন স্থানে ছেলে ধরা সন্দেহে গনপিটুনিতে বেশ কয়েকজন মর্মান্তিকভাবে প্রাণ হারিয়েছেন।

উপজেলাবাসীর জ্ঞাতার্থে আরো জানানো হয়, এটি একটি গুজব। কোন প্রকার গুজবে কান দিবেন না এবং গুজব ছড়িয়ে মানুষকে বিভ্রান্ত করবেন না। গুজবে বিভ্রান্ত হয়ে ছেলে ধারা সন্দেহে কাউকে গণপিটুনি দিয়ে আইন নিজের হাতে তুলে নিবেন না। এ পর্যন্ত গণপিটুনির ফলে যতগুলো নিহতের ঘটনা ঘটেছে, প্রত্যেকটি ঘটনা আমলে নিয়ে পুলিশ তদন্তে নেমেছে। জড়িতদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনা হচ্ছে। দেশে অস্থিতিশীল পরিবেশ তৈরি করা রাষ্ট্র বিরোধী কাজের শামিল। গণপিটুনি একটি ফৌজদারী অপরাধ। বার্তায় সবাইকে সচেতন হওয়ার আহবান জানিয়ে বলা হয় গুজব ছড়ানো এবং গুজবে কান দেয়া থেকে বিরত থেকে কাউকে ছেলে ধরা সন্দেহ হলে গণপিটুনি না দিয়ে তাকে পুলিশের হাতে তুলে দিন।

3 মন্তব্য

  1. ওই মহিলার ও তো একটা মেয়ে আছে মেয়েটা দায়িত্বটা এখন কি নিবে আরে নিষ্ঠুর মানুষ এইসব কেন যে করেন আপনাদের নিজের বিবেককে একটু জিজ্ঞাসা করেন যদিও বা আপনার বোন এভাবে মিথ্যা অপবাদের শিকার হতো আপনার বোনের যদি একটা মেয়ে থাকতো সে মেয়েটা কি অপরাধ সে মেয়েটার কি অবস্থা হবে বলেন একটা কথা আছে ভেবেচিন্তে করিও কাজ করিয়া ভাবিও না আমরা গরু খাওয়া মাথা কিছু বুঝিনা না