প্রিয়া সাহাকে গ্রেফতার করা হবে কি না জানতে চেয়ে ওয়াশিংটনের ফোন

0
.

প্রিয়া সাহাকে নিয়ে যথেষ্ট উদ্বিগ্ন যুক্তরাষ্ট্র। আর তাই বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেনের কাছে ফোন এসেছে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে। প্রিয়া সাহাকে বাংলাদেশ সরকার গ্রেপ্তার করতে যাচ্ছে কি না তা জানতে চেয়ে মন্ত্রীকে ফোন করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুল মোমেন নিজেই বুধবার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ফোনের ব্যাপারে মোমেন বলেন, ‘তিনি জানতে চেয়েছিলেন আমরা প্রিয়া সাহার বিরুদ্ধে মামলা করেছি কি না। আমি বলেছি সরকার তার বিরুদ্ধে কোনো মামলা করবে বলে মনে হয় না।’

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, ‘তিনি আমাকে জানান, প্রিয়া সাহা এখন শঙ্কিত। আমি বলেছি প্রিয়া দেশে ফিরলে সরকারের কাছে নিরাপত্তা চাইতে পারেন। বাংলাদেশে অনেকেই অনেক কথা বলেন। আমরা তাদের গ্রেপ্তার করি না।’ তবে ওই কর্মকর্তার কাছে প্রিয়া সাহার অভিযোগকে পুরোপুরি ভিত্তিহীন বলেও দাবি করেছেন আব্দুল মোমেন।

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশ হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক প্রিয়া সাহা গত ১৭ জুলাই হোয়াইট হাউসে এক অনুষ্ঠানে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে অভিযোগ করেন, বাংলাদেশে ধর্মীয় সংখ্যালঘুরা মৌলবাদীদের নিপীড়নের শিকার হচ্ছেন। প্রায় ৩ কোটি ৭০ লাখ হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিষ্টান নিখোঁজ হয়েছেন। তার নিজের বাড়িঘরও পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।

তার ওই বক্তব্যে তীব্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয় দেশের বিভিন্ন মহলে। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে বলে, বাংলাদেশের ভাবমূর্তি ‘ক্ষুণ্নের উদ্দেশ্যেই’ প্রিয়া সাহা ‘বানোয়াট ও কল্পিত অভিযোগ’ করেছেন। প্রিয়া সাহা ‘রাষ্ট্রদ্রোহিতার অপরাধ’ করেছেন মন্তব্য করে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছিলেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তবে তার বিরুদ্ধে দেশের বেশ কয়েকটি স্থানে রাষ্ট্রদ্রোহিতার মামলা হলেও সবগুলোই খারিজ করে দিয়েছে আদালত।

কোন মন্তব্য নেই