সিভাসুতে ভারতীয় সহকারি হাই কমিশনার
“বাংলাদেশ ও ভারতের শাশ্বত বন্ধনকে কোনো অপশক্তি ছিন্ন করতে পারবে না”

0
ব্রেকিং নিউজ
  •  

       

                     

       

                     

       

                     

       

                     

       

                     

       

                     

       

.

ভারতীয় সহকারি হাই কমিশনার শ্রী অনিন্দ্য ব্যানার্জি বলেছেন, সেই ১৯৭১ সাল থেকে ভারত বাংলাদেশের পাশে আছে। ভারত শুধু সাময়িক সহযোগিতা করেনি, সাহায্যের হাত বাড়িয়েছিল বিভিন্ন পর্যায়ে। বাংলাদেশের প্রায় এক কোটি শরণার্থীকে আশ্রয় দেয়া, আন্তর্জাতিক পর্যায়ে জোরালো কূটনৈতিক প্রচারণা, স্বীকৃতি প্রদান এবং নানা দেশের সমর্থন আদায়ের প্রয়াস অব্যাহত ছিল। এই স্বাধীনতা যুদ্ধে বাংলাদেশি মুক্তিযোদ্ধা এবং ভারতীয় সেনাবিহিনী একসাথে প্রাণ বিসর্জন দিয়ে এক স্থায়ী মৈত্রী বন্ধন তৈরি করে গেছেন। কোন অপশক্তি এই শাশ্বত বন্ধনকে ছিন্ন করতে পারবে না।

তিনি আজ রবিবার চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও এনিম্যাল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ের (সিভাসু) ভেটেরিনারি মেডিসিন অনুষদের ১৯তম ব্যাচের শিক্ষার্থীদের সম্প্রতি ভারতে সম্পন্ন ক্লিনিক্যাল ইন্টার্নশিপ-এর ওপর আয়োজিত এক ফিডব্যাক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।

শ্রী অনিন্দ্য ব্যানার্জি আরও বলেন, গত ৪৮ বছরে বাংলাদেশ অর্থনৈতিক ও সামাজিকভাবে অনেক উন্নতি করেছে। বাংলাদেশের এই উন্নতি এখন বিশ্বের এক উদাহরণ। মাথাপিছু আয়, মানবসম্পদ ও অর্থনৈতিক ঝুঁকি মোকাবিলায় সক্ষমতা অর্জন করায় স্বল্পোন্নত দেশ থেকে বাংলাদেশকে উন্নয়নশীল রাষ্ট্র হিসেবে উন্নীত করার সুপারিশ করেছে জাতিসংঘ। বাংলাদেশের এই অগ্রগতিতে আমরা ভারতীয়রা আনন্দিত। বাংলাদেশ এবং বাংলাদেশের মানুষের উন্নয়নে ভারত সবসময় পাশে দাঁড়িয়েছে।

চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও এনিম্যাল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশংসা করে ভারতীয় সহকারি হাই কমিশনার আরো বলেন, গত ১৯ বছর ধরে সিভাসু’র ছাত্রছাত্রীরা তামিলনাডু ভেটেরিনারি ও এনিম্যাল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ে ইন্টার্নশিপ করে আসছে। এই এক্সচেঞ্জ প্রোগ্রামের (Exchange Programme) মাধ্যমে দু’দেশের শিক্ষার্থীরাই খুবই উপকৃত হচ্ছে। বাংলাদেশ ও ভারতের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যকার এ ধরনের কল্যাবরেশনস (Collaborations) শিক্ষার গুণগত মান বৃদ্ধি এবং দু’দেশের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের দক্ষতা উন্নয়নের ক্ষেত্রে কার্যকর ভূমিকা রাখবে।

বিকালে সিভাসু অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত ‘ফিডব্যাক অনুষ্ঠান’-এ প্রধান পৃষ্ঠপোষক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সিভাসু’র উপাচার্য প্রফেসর ড. গৌতম বুদ্ধ দাশ। সভাপতিত্ব করেন পরিচালক (বহিরাঙ্গণ কার্যক্রম) প্রফেসর ড. এ.কে.এম. সাইফুদ্দীন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন মাৎস্যবিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. এম. নূরুল আবছার খান, ফুড সায়েন্স এন্ড টেকনোলজি অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. জন্নাতারা খাতুন, ভেটেরিনারি মেডিসিন অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. আবদুল আহাদ, ইয়ন গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিজের মানবসম্পদ বিভাগের মহাব্যবস্থাপক সুলতান মাহমুদ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন পরিচালক (ছাত্রকল্যাণ) প্রফেসর ড. মোহাম্মদ মেজবাহ উদ্দিন। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন সহকারি অধ্যাপক মোকাদ্দেস আহম্মেদ দিপু।

উল্লেখ্য, সিভাসু’র ভেটেরিনারি মেডিসিন অনুষদের ১৯তম ব্যাচের ৫৯ জন শিক্ষার্থী ভারতের তামিলনাডু ভেটেরিনারি ও এনিম্যাল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রতিবারের মত এবারও এক মাসের (১৯ জুন – ১৯ জুলাই ২০১৯) ‘ক্লিনিক্যাল ইন্টার্নশিপ’ সম্পন্ন করেছে।

এ উপলক্ষ্যে উক্ত ফিডব্যাক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। অনুষ্ঠানে একজন ছাত্র ও একজন ছাত্রী পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশনের মাধ্যমে তাদের অর্জিত অভিজ্ঞতা তুলে ধরেন।

অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ক্রেস্ট দিয়ে ভারতীয় সহকারি হাই কমিশনারকে সম্মাননা জানান।

কোন মন্তব্য নেই