পুলিশের দাবি আত্মহত্যা
থানা হাজতে যুবকের মৃত্যু নিয়ে এলাকায় উত্তেজনা

0
ছেলের মৃত্যুর খবরে মাটিতে লুটিয়ে মায়ের আহাজারি (বাঁ দিকে), ডানে থানা ঘেরাও করে এলাবাসীর বিক্ষোভ

নীলফামারীর কিশোরগঞ্জে গরু চুরির অভিযোগে আটক মামুন (২৩) নামে এক যুবকের থানা হাজতে মৃত্যু হয়েছে।

এ ঘটনা প্রকাশ পাওয়ার পর শনিবার সন্ধ্যায় ওই যুবকের স্বজনরা থানার সামনের রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছেন। নিহত ওই যুবক সদর ইউনিয়নের যদুমনি গ্রামের হুজুর আলীর ছেলে।

জানা যায়, এলাকাবাসী গরু চুরির অভিযোগে মামুনকে আটক করে শনিবার বিকেলে কেশবা গ্রামের মহিলা ইউপি সদস্য নারগিছ বেগমের বাড়িতে বন্দি করে রাখে।

খবর পেয়ে পুলিশ সেখান থেকে তাকে নিয়ে এসে থানা হাজতে রাখেন। পরে সেখানে তার মৃত্যু হয়।

নীলফামারী জেলা পুলিশ সুপার মুহাম্মাদ আশরাফ হোসেন ও এডিশনাল এসপি সৈয়দপুর সার্কেল অশোক কুমার পাল থানায় আসার পর সন্ধ্যায় ঘটনা প্রকাশ পায়।

বিষয়টি জানতে পেরে নিহত মামুনের পরিবার, স্বজন ও তার এলাকার লোকজন থানা চত্ত্বরে বিক্ষোভ প্রদর্শণ করেন।

এক পর্যায়ে তারা উত্তেজিত হয়ে থানার সামনের রাস্তায় অবরোধ করেন এবং পুলিশের বিরুদ্ধে বিভিন্ন শ্লোগান দেন। তাদের অভিযোগ, পুলিশ তাকে পিটিয়ে মেরে ফেলেছে।

এব্যাপারে নীলফামারী জেলা পুলিশ সুপার মুহাম্মাদ আশরাফ হোসেন জানান, থানা হাজতের কাঁথা ছিড়ে রশির মত করে ভেন্টিলেটারের রডের সঙ্গে বেধে গলায় ফাঁস দিয়ে সে আত্মহত্যা করেছে।

কোন মন্তব্য নেই