খালেদা জিয়ার জন্ম বার্ষিকী উপলক্ষে নগর বিএনপির দোয়া ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত

4
.

কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ৭৫ তম জন্মদিন উপলক্ষে কেন্দ্রঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির উদ্যোগে নাসিমন ভবনস্থ দলীয় কার্যালয় সংলগ্ন জামে মসজিদে তার রোগ মুক্তি ও দীর্ঘায়ু কামনা করে দোয়া ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

আজ ১৬ আগষ্ট শুক্রবার বাদ জুমা দোয়া ও মিলাদ মাহফিল পরিচালনা করেন দলীয় কার্যালয় সংলগ্ন জামে মসজিদের খতীব কারী হাফেজ মাওলানা এহসানুল হক।

দোয়া ও মিলাদ মাহফিলে কারাবন্দি দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া রোগ মুক্তি ও দীর্ঘায়ু কামনা করে বিশেষ মুনাজাত করা হয়।

মিলাদ ও দোয়া মাহফিলে শরীক হন চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সভাপতি ডাঃ শাহাদাত হোসেন, বিএনপির কেন্দ্রীয় শ্রম বিষয়ক সম্পাদক এ এম নাজিম উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক আবুল হাসেম বক্কর, সাবেক সাধারণ সম্পাদক একরামুল করিম, সিনিয়র সহ-সভাপতি আবু সুফিয়ান, এডভোকেট বদরুল আনোয়ার, সহসভাপতি আলহাজ্ব এম এ আজিজ, এড. আবদুস সাত্তার সরওয়ার, এস এম আবুল ফয়েজ, যুগ্ম সম্পাদক কাজী বেলাল উদ্দিন, মো. শাহ আলম, ইসকান্দর মির্জা, আর ইউ চৌধুরী শাহীন, আবদুল মান্নান, আনোয়ার হোসেন লিপু, শাহেদ বক্স, সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুল ইসলাম, সহ সাধারণ সম্পাদক জি এম আইয়ুব খান, শাহ আলম, সম্পাদকবৃন্দ শিহাব উদ্দিন মুবিন, এইচ এম রাশেদ খান, হাজী নুরুল আকতার, মো. আলী, বিএনপি নেতা আবদুল্লাহ আল হারুন, আবদুল হালিম স্বপন, আজাদ বাঙালী, ইসমাইল বাবুল, আরিফ মেহেদী, আবু মুসা, শফিক আহমদ, আলমগীর নূর, মোস্তাফিজুর রহমান বুলু, আবদুল হাই, আলী আজম, থানার সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব জাকির হোসেন, আবদুল কাদের জসিম, নূর হোসেন, নগর বিএনপির সদস্য ইউসুফ সিকদার, আলী ইউসুফ, এস এম মফিজ উল্লাহ, আকতার খান, নবাব খান, আবদুল্লাহ আল ছগীর, এস এম ফরিদুল আলম, ফারুক আহমেদ, মোশারফ জামান, মো. আজম, ওয়ার্ড বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ছাদেকুর রহমান রিপন, আবু ফয়েজ, সিরাজুল ইসলাম মুনসি, কামরুল ইসলাম, মোস্তাক আহমদ, জসিম মিয়া, হাজী মো. জাহেদ, মো. হাসান, হাসান ওসমান চৌধুরী, অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ নাছির উদ্দিন চৌধুরী নাছিম, মো. শাহাব উদ্দিন, আসাদুজ্জামান টিপু, আনোয়ার হোসেন আনু, জমির উদ্দিন নাহিদ, জিয়াউর রহমান জিয়া, জসিম চৌধুরী প্রমুখ।

মিলাদ ও দোয়া মাহফিল শেষে দলীয় কার্যালয় নাসিমন ভবনে বেগম খালেদা জিয়ার জীবনের উপর এক সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে বিএনপি নেতৃবৃন্দ বলেন, বেগম খালেদা জিয়ার জন্ম হয়েছে নির্যাতিত, সুবিধাবঞ্চিত ও অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করার জন্য। বর্তমান অবৈধ সরকারের হাতে লুন্ঠিত দেশের মানুষের ভোটাধিার, আইনের শাসন, গণতন্ত্র পুনঃরুদ্ধারের সংগ্রাম করতে গিয়ে জালেমের কারাগারে বন্দি। নিজের স্বার্থের কথা চিন্তা না করে সকল প্রতিকূলতার মাঝেও সারা জীবন দেশের মানুষের পক্ষে কথা বলেছেন। প্রয়োজনে রাজপথে থেকে আন্দোলন করেছেন। নেতৃবৃন্দ বলেন, কারাবন্দি দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ভয়াবহ অসুস্থতার পরও সরকার তাঁর প্রতি আরো হিংস্র হয়ে উঠেছে। ৭৫ বছর বৃদ্ধ মহিলার প্রতি অমানবিক আচরণ করছে সরকার। প্রতিনিয়ত বিভিন্নভাবে জামিনে বাধা সৃষ্টি করা হচ্ছে। সরকারের ব্যক্তিগত আক্রোশের শিকার দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে কারাবন্দি রেখে বিনা চিকিৎসায় তিলে তিলে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিচ্ছে। অবস্থাদৃষ্টে মনে হচ্ছে বেগম জিয়াকে করাগারে মেরে ফেলতে পারলেই সরকারের লক্ষ্য পূরণ নিশ্চিত হবে। নেতৃবৃন্দ দেশের জনগণসহ জাতীয়তাবাদী শক্তিকে দেশনেত্রীকে কারামুক্ত করতে রাজপথে নেমে আসবে আহবান জানান। -প্রেসবিজ্ঞপ্তি

4 মন্তব্য

  1. বিএনপি নেতাকর্মীদের কে দেখলে গায়ে জ্বলে ওঠে কারণ এই সুখের মাসে দ্বারা বেগম খালেদা জিয়ার মিথ্যা জন্মদিন পালন করে । আমরা জানি ইতিমধ্যে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ব্যাপারটি স্বীকার করেছে যে বেগম খালেদা জিয়া প্রতি বছর মিথ্যা জন্মদিন পালন করে । তার এবং মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এটাও বলেছে যে সামনে থেকে এমনটা আমরা করব না এবং দলের বাকি নেতাকর্মীদেরকে করতে বারণ করব ।

  2. রাজিয়ার মিথ্যা জন্মদিন তারা প্রতি বছর পালন করে আসে এবং এই সুখের মাসে তারা কোনোদিনও মেনে নেয় নাই । তারা নাকি চোখে বিশ্বাস করে না আর তারা এটাও বিশ্বাস করে না যে শেখ মুজিবুর রহমান এর জন্যই এই দেশ স্বাধীন হয়েছে । কিন্তু তাদের কে একটি কথা বলতে চাই । ওদের নেতা জিয়াউর রহমান কিন্তু শেখ মুজিবুর রহমানকে ঠিকই সম্মান করত এবং তিনি এটাও মানতে যে মজিবর রহমান এর জন্যই এ দেশ স্বাধীন হয়েছিল ।এবং জিয়াউর রহমান যতদিন বেঁচে ছিল যতদিন খালেদা জিয়ার এই মিথ্যা জন্মদিন পালন হয়নি সে মারা যাওয়ার পরে মিথ্যা জন্মদিন বানানো হয় এবং এটি পালন করা হয় ।