নৌকার পক্ষে কাজ করায় আ’লীগ কর্মীকে সিগারেটের আগুনের ছ্যাকা

0
ব্রেকিং নিউজ
  •  

       

                     

       

                     

       

                     

       

                     

       

                     

       

                     

       

.

নাটোরের সিংড়া উপজেলা নির্বাচনে নৌকার পক্ষে কাজ করায় আওয়ামী লীগ কর্মী মো. ইমরান হোসেন তোতাকে মারধরের পর বুকে সিগারেটের আগুনের ছ্যাকা দিয়েছেন দলটির নেতা লুৎফুল হাবিব রুবেলের লোকজন।

মঙ্গলবার রাত ৮টার দিকে শেরকোল ইউনিয়নের শিববাড়ী বাজারে এ ঘটনা ঘটে।

এদিকে বুধবার সকালে আহত মো. ইমরান হোসেন তোতাকে নাটোর আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ও আওয়ামী লীগ কর্মীকে মারধর করে বুকে সিগারেটের আগুনের ছ্যাকা দিয়েছে উপজেলা আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও শেরকোল ইউপি চেয়ারম্যান লুৎফুল হাবিব রুবেলের ঘনিষ্ঠ সহচর জাহিদ হোসেন ও তার বাহিনী।

আহত তোতা উপজেলার শেরকোল ইউনিয়নের তেমুখ নওদাপাড়া গ্রামের মৃত ইসমাইল সরদারের ছেলে। তিনি পেশায় রাজমিস্ত্রি।

স্থানীয় সূত্র জানায়, গত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী ও বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম শফিকের পক্ষে কাজ করেন তোতা। নির্বাচনে শফিক জয়লাভ করলে তোতার উপর ক্ষুদ্ধ হন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও শেরকোল ইউপি চেয়ারম্যান লুৎফুল হাবিব রুবেল।

তোতাকে সিংড়া ছাড়ার হুমকি দেন লুৎফুল হাবিব রুবেলের ঘনিষ্ঠ সহচর জাহিদ হোসেন ও তার বাহিনী। এতে কুষ্টিয়া চলে যান তোতা। মঙ্গলবার রাতে বন্ধুদের সঙ্গে দেখা করে বাড়ি ফেরার সময় শিববাড়ি বাজারে জাহিদ হোসেন তার পথরোধ করেন।

পরে তাকে তুলে নিয়ে গিয়ে পার্শ্ববর্তী একটি মার্কেটের ভেতরে নিয়ে মারধর করে বুকে সিগারেটের ছ্যাকা দেয় জাহিদ, মামুন, সুমন, করিম ও হানিফ।

আহত মো. ইমরান হোসেন তোতা সাংবাদিকদের জানান, নৌকার পক্ষে কাজ করায় তিনি হামলার শিকার হয়েছেন। ইউপি চেয়ারম্যান লুৎফুল হাবিব রুবেলের সমর্থকদের ভয়ে থানায় অভিযোগ করার সাহস পাচ্ছি না।

এ ঘটনায় নিজের কর্মী-সমর্থকদের সম্পৃক্ততার কথা অস্বীকার করে শেরকোল ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান লুৎফুল হাবিব রুবেল বলেন, কোনো ধরনের হামলার বিষয়টি তিনি জানতেন না। এখন জেনে খোঁজ নেবেন। সিংড়া থানার ওসি মনিরুল ইসলাম বলেন, হামলার ব্যাপারে কেউ কোনো অভিযোগ দায়ের করেননি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ও যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক কামরুল হাসান এই ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়ে এর সুষ্ঠ বিচার দাবি করেন। আওয়ামী লীগকে ধ্বংসের হাত থেকে বাঁচাতে এদেরকে বিচারের আওতায় আনারও দাবি জানান তিনি।

সিংড়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও পৌর আওয়ামী লীগ সভাপতি শফিকুল ইসলাম শফিক বলেন, বিগত উপজেলা নির্বাচনে যারাই নৌকার পক্ষে কাজ করেছেন তারাই বিভিন্নভাবে লাঞ্ছিত হয়েছেন। দিনমজুর তোতার ওপর হামলায় তীব্র নিন্দা জানিয়ে এ ঘটনার বিচার সুষ্ঠু বিচার দাবি করেন তিনি।

কোন মন্তব্য নেই