অশুভ শক্তির তৎপরতা,বাংলাদেশের অর্ধেক অংশ নিতে চায় ভারত : ডা. জাফরুল্লাহ

4
ব্রেকিং নিউজ
  •  

       

                     

       

                     

       

                     

       

                     

       

                     

       

                     

       

.

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, আমাদের চারদিকে অশুভ শক্তির তৎপরতা শুরু হয়েছে। ভারত বাংলাদেশকে ভাগ করে অর্ধেক অংশ নিয়ে নিতে চায়। অথচ সরকার টু শব্দটি করছে না।

আজ মঙ্গলবার বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবে মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান মরহুম কাজী জাফর আহমদের চতুর্থ মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত স্মরণ সভায় অংশ নিয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ভারত কোনো সময়ই বাংলাদেশে শান্তি শৃংখলা বজায় থাকুক সেটা চায় না। এক্ষেত্রে বাংলাদেশ সব সময়ই নতজানু নীতি গ্রহণ করছে। বাংলাদেশের সামনে সময় এসেছে ভারতে মুখোশ উন্মোচন করার। তিনি বলেন, আমরা শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মবার্ষিকী মৃত্যুবার্ষিকী ঘটা পালন করছি কিন্তু তিনি যে নীতিতে বিশ্বাসী ছিলেন আওয়ামী লীগ এখন তার ধারে কাছেও নেই।

জাতীয় পার্টির সভাপতি ও সাবেক মন্ত্রী মোস্তফা জামান হায়দারের সভাপতিত্বে স্মরণ সভায় অন্যান্যের মধ্যে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি)’র মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, জেএসডি সভাপতি আ স ম রব, বিএনপি’র ভাইস চেয়ারম্যান এডভোকেট নিতাই রায় চৌধুরী, বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ অধ্যাপক ড. মাহবুব উল্লাহ, জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি জাগপা’র মহাসচিব লুৎফর রহমান, জাতীয় পার্টির মহাসচিব জাফরুল্লাহ খান চৌধুরী (লাহুরী), কাজী জাফরের মেয়ে কাজী জয়া, প্রেসিডিয়াম সদস্য সাবেক এমপি সেলিম মাষ্টার, নওয়াব আলী আব্বাস খান, এডভোকেট শফিউদ্দিন ভূইয়া, এডভোকেট মুজিবুর রহমান, রুহুল আমীন, এ এস এম শামীম, ডা. এম এ মামুন ভুইয়া, মহসীন সরকার প্রমুখ।

4 মন্তব্য

  1. মনে যা আসে তা বলে ফেলার মাধ্যমে একটি দেশকে বাঁচিয়ে দেওয়ার কোন ধরনের মানে হয়না। ভারতবিদ্বেষ আপনারা পোষণ করেন সেটি না হয় আমরা বুঝলাম তাই বলে এমন কথাগুলো যে বলেন তাঁর জন্যে যথেষ্ট পরিমাণ প্রমাণ উপস্থাপন করতে হবে যাতে মানুষ বিভ্রান্ত না হয়।দেশবিরোধী চক্রান্তে যারা লিপ্ত রয়েছে সেই সকল জামায়াত নেতাদের সাথে আপনাদের ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক রয়েছে সেটি আমরা জানি, যদি দেশকে ভালোবেসে থাকেন তাহলে আগে তাদেরকেই আপনাদের সরানো উচিত।

  2. মুখে যা আসে তাই বলে দেয়ার স্বভাব, জাফর উল্লাহ সাহেবের। তাই তাকে তার পরিবারের লোকজনও প্রতিনিয়ত হেয় করে। জনসমর্থন আদায় করার জন্য জাফরুল্লাহ সর্বদা সংবাদমাধ্যমগুলো লাইম লাইটে আসার চেষ্টা করে। সে অনুযায়ী এখন সে, ভারত আর বাংলাদেশকে নিয়ে আন্দাজে এক কথা বলে দিলো।

  3. ভারত আছে নিজেদের অভ্যন্তরীণ সমস্যা নিয়ে, সেটা বাদ দিয়ে তারা বাংলাদেশের জায়গা দখল নিবে এমন কথা বলা বোকামি। বৃদ্ধ হলে মানুষের মাথায় সমস্যা দেখা দেয়, তেমনি ভাবে জাফরুল্লাহ সাহেবও নিজেকে আলোচনা-সমালোচনায় রাখতে, মিথ্যা প্রোপাগান্ডা ছড়িয়ে যাচ্ছে। ভারত কখনো বাংলাদেশ দখল নিতে পারবে না। আপনার জানা উচিত, বাংলাদেশে এখন আর আগের সেই অবস্থায় নেই।

  4. অশুভ শক্তির কথা বলছে কিন্তু বাংলাদেশের সবচাইতে বড় অশুভ শক্তি হলো যারা বাংলাদেশের স্বাধীনতার প্রতি সম্মান প্রদর্শন করে না কিংবা পাকিস্তানকে এখনো মন থেকে মেনে নিতে পারে। ভারত বাংলাদেশের লাভ করে সেটি কখনো বলবো না তবে ভারত বাংলাদেশকে দখল করবে এই কথাটি বলার আগে আপনাদেরকে সেটি প্রমাণস্বরূপ দেখাতে হবে তা নাহলে এমন কথাগুলো ভিত্তিহীন হয়ে পড়বে জনগণের নিকট আর জনগণ বুঝে নিবে ভারতের সাথে আপনাদের সুসম্পর্ক নেই বলে এখন এই ধরনের কথাগুলো বলছেন।