শ্বশুর-শাশুড়ির যাবজ্জীবন
খাগড়াছড়িতে স্ত্রী ও শিশু সন্তান হত্যার দায়ে স্বামীর মৃত্যুদন্ড

1
.

খাগড়াছড়ির গুইমারায় পারিবারিক কলহের জেরে গৃহবধূ ও শিশু সন্তানকে শ্বাসরোধ করে হত্যার দায়ে একজনকে মৃত্যুদন্ড ও আরো দুইজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে জেলা ও দায়রা জজ আদালত।

আজ বৃহস্পতিবার(৫ সেপ্টেম্বর) দুপুর ১২টায় খাগড়াছড়ির জেলা ও দায়রা জজ রেজা মো. আলমগীর হোসেন এই রায় প্রদান করেন।

জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর এডভোকেট বিধান কানুনগো জানান, ২০১৬ সালের ২২ মার্চ রাতে গুইমারার বড়পিলাক এলাকায় পারিবারিক কলহের জেরে গৃহবধূ মাজেদা বেগম ও ছয় মাসের পুত্র সন্তান রিদোয়ান আহম্মেদকে শ্বশুর শ্বাশুড়িসহ মিলে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে স্বামী ছাবের আলী। রাষ্ট্রপক্ষের ১৬ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যতে অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হওয়ায় দন্ডবিধি ৩০২ ধারায় দোষী সাব্যস্ত হওয়ায় আসামী ছাবের আলীকে মৃত্যুদন্ড ও ৫০ হাজার টাকা অর্থদন্ড প্রদান করা হয়। এছাড়া দন্ডবিধ ৩৪ ধারায় হত্যাকাণ্ডে সহযোগিতার দায়ে শ্বশুর মো. মাহবুব আলী ও শ্বাশুড়ী রেনু আরা বেগমকে যাবজ্জীবন ও ১০ হাজার টাকার অর্থদন্ড অনাদায়ে ৬ মাসের সশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়। এই মামলার অপর আসামী মো. শাহজাহান নির্দোষ প্রমাণিত হওয়ায় বেকসুর খালাস দেয় আদালত। রায়ে সন্তোষ জানিয়েছেন রাষ্ট্রপক্ষ ও নিহতদের স্বজনরা।

তবে আসামিপক্ষের আইনজীবী এডভোকেট মহিউদ্দিন কবির রায়ে অসন্তোষ জানিয়ে ন্যায় বিচার থেকে বঞ্চিত হয়েছেন বলে দাবি করেন। রায়ের বিরুদ্ধে দ্রুত সময়ের মধ্যে উচ্চ আদালতে আপিল করা হবে বলেও জানান তিনি।