মা-মেয়েকে ধর্ষণের মূল আসামী গ্রাম পুলিশ মুক্তার গ্রেফতার

3
.

কুস্টিয়া জেলার খোকসায় বিধবা মা ও তার ষষ্ঠ শ্রেণিতে পড়ুয়া মেয়েকে দুই ভাইয়ের ধর্ষণের ঘটনায় একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

তবে মেয়েকে ধর্ষণের ঘটনায় পুলিশ আজ সোমবার সন্ধ্যায় মামলা নিলেও মায়ের ঘটনায় মামলা নেয়া হয়নি বলে ওই বিধবা অভিযোগ করেছেন।

গ্রেফতার মুক্তার হোসেন উপজেলার খোকসা ইউনিয়ন পরিষদের গ্রাম পুলিশ।

ভুক্তভোগীরা জানান, মোড়াগাছা গ্রামের এক বিধবাকে ভয়ভীতি দেখিয়ে প্রায় ১ বছর ধরে ধর্ষণ করে আসছেন মুক্তার। এ সুযোগে তার ভাই মাহাবুল আলম টিক্কা বিধবার মেয়েকে কয়েক দফায় ধর্ষণ করেন। তারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে অভিযোগ করলে তিনি ভুক্তভোগীদের থানায় পাঠান।

মঙ্গলবার নির্যাতিত মেয়েটির ডাক্তারি পরীক্ষা করানো হতে পারে বলে পরিবার জানিয়েছে।

মেয়েটির চাচা জানান, টানা দুই দিন তদবিরের পর মেয়েকে ধর্ষণের ঘটনার এজাহার নিয়েছে পুলিশ। এতে মুক্তার ও তার ভাইকে আসামি করা হয়েছে।

থানায় মুক্তার দাবি করেন, বিধবার সাথে তার পরকীয়ার সম্পর্ক ছিল। চাকরিচ্যুত করার জন্য তার বিরুদ্ধে চক্রান্ত করা হচ্ছে।

খোকসা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এবিএম মেহেদী মাসুদ বলেন, ‘ইতিমধ্যে গ্রাম পুলিশ মুক্তার হোসেনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অপর আসামিকে গ্রেপ্তারের জন্য পুলিশি তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে।’ কিুস্টিয়া জেলার খোকসায় বিধবা মা ও তার ষষ্ঠ শ্রেণিতে পড়ুয়া মেয়েকে দুই ভাইয়ের ধর্ষণের ঘটনায় একজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

তবে মেয়েকে ধর্ষণের ঘটনায় পুলিশ সোমবার সন্ধ্যায় মামলা নিলেও মায়ের ঘটনায় মামলা নেয়া হয়নি বলে ওই বিধবা অভিযোগ করেছেন।

গ্রেপ্তার মুক্তার হোসেন উপজেলার খোকসা ইউনিয়ন পরিষদের গ্রাম পুলিশ।

ভুক্তভোগীরা জানান, মোড়াগাছা গ্রামের এক বিধবাকে ভয়ভীতি দেখিয়ে প্রায় ১ বছর ধরে ধর্ষণ করে আসছেন মুক্তার। এ সুযোগে তার ভাই মাহাবুল আলম টিক্কা বিধবার মেয়েকে কয়েক দফায় ধর্ষণ করেন। তারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে অভিযোগ করলে তিনি ভুক্তভোগীদের থানায় পাঠান।

মঙ্গলবার নির্যাতিত মেয়েটির ডাক্তারি পরীক্ষা করানো হতে পারে বলে পরিবার জানিয়েছে।

মেয়েটির চাচা জানান, টানা দুই দিন তদবিরের পর মেয়েকে ধর্ষণের ঘটনার এজাহার নিয়েছে পুলিশ। এতে মুক্তার ও তার ভাইকে আসামি করা হয়েছে।

থানায় মুক্তার দাবি করেন, বিধবার সাথে তার পরকীয়ার সম্পর্ক ছিল। চাকরিচ্যুত করার জন্য তার বিরুদ্ধে চক্রান্ত করা হচ্ছে।

খোকসা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এবিএম মেহেদী মাসুদ বলেন, ‘ইতিমধ্যে গ্রাম পুলিশ মুক্তার হোসেনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অপর আসামিকে গ্রেফতার জন্য পুলিশি তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে।’