নোয়াখালীতে ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে থানায় মামলা দায়ের

0
.

নোয়াখালী জেলা প্রতিনিধি:

নোয়াখালীর সেনাাইমুড়ীর উপজেলার পরিষদের মাস্টার রোলের পিয়ন জাকির হোসেন (২৮)’র বিরুদ্ধে ৬ষ্ঠ শ্রেণীর স্কুল ছাত্রী (১৩), কে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে।

অভিযুক্ত পিয়ন উপজেলার নন্দনা ইউনিয়নের শাকতোলা গ্রামের জালাল আহম্মদ’র ছেলে।  ঘটনার পর থেকেই সে পালাতক রয়েছে।

আজ বুধবার (২ অক্টোবর) এ ঘটনায় ভুক্তভোগীর পরিবার থানায় মামলা দায়ের করেছে। পরে দুপুরে দিকে ধর্ষণের শিকার স্কুল ছাত্রীকে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে পাঠিয়েছে পুলিশ।

সোনাইমুড়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা টিনা পাল জানান, অভিযুক্ত জাকির সোনাইমুড়ী উপজেলা পরিষদ কার্যালয়ের অস্থায়ী পিয়ন, দৈনিক হাজিরা ভিত্তিক চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারী।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, এর আগে গত রবিবার রাতে উপজেলার নদনা ইউনিয়নের নদনা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ওই ছাত্রী পাশের ঘরে টিভি দেখতে যাচ্ছিলো। এ সময় একই বাড়ির জাকির হোসেন ওই ছাত্রীকে উঠান থেকে মুখ চেপে ধরে ঘরে নিয়ে জোর পূর্বক ধর্ষণ করে। পরে ওই ছাত্রীর শৌর চিৎকারে বাড়ীর লোকজন বেরিয়ে আসলে ধর্ষক পালিয়ে যায়।

এক পর্যায়ে স্থানীয়দের পরামর্শে ধর্ষিতার বাবা বাদী হয়ে জাকিরকে অভিযুক্ত করে থানায় গিয়ে লিখিত অভিযোগ দায়ের করলে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। পরবর্তিতে সেই অভিযোগ আমলে নিয়ে বুধবার সকালে মামলা হিসেবে গ্রহণ করে পুলিশ।

এ বিষয়ে সোনাইমুড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুস সামাদ জানান, এ ঘটনায় ভুক্তভোগীর পরিবার মামলা দায়ের করা হয়েছে। পালাতক ধর্ষক জাকিরকে গ্রেফতারে পুলিশ চেষ্টা চালাচ্ছে।

কোন মন্তব্য নেই