ঢাকায় এনে তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগ বরিশাল উপজেলা চেয়ারম্যান ও আ’লীগ নেতার বিরুদ্ধে মামলা

0
.

ঢাকায় এনে নিজ ফ্ল্যাটে আটকে রেখে এক তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগে বরিশাল বানারীপাড়া উপজেলা চেয়ারম্যান মো. গোলাম ফারুকের বিরুদ্ধে রাজধানীর ভাটারা থানায় মামলা হয়েছে।  গতকাল বৃহস্পতিবার মামলাটি দায়ের করা হয়।

গোলাম ফারুক বানারীপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি।  আজ শুক্রবার ভাটারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোক্তারুজ্জামান এই তথ্য জানিয়েছেন।

মোক্তারুজ্জামান বলেন, ‘এক তরুণী মো. গোলাম ফারুক নামের এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ করা হয়েছে বলে মামলা দায়ের করেছেন। দেড় মাস ধরে ওই তরুণীকে ধর্ষণ করছেন বলে মামলার এজাহারে বলা হয়েছে।’

ওসি মোক্তারুজ্জামান বলেন, ‘গত ১২ সেপ্টেম্বর থেকে মুঠোফোনের রং নম্বরের মাধ্যমে তাদের পরিচয় হয়। তাদের মধ্যে সম্পর্ক গড়ে উঠে। এরপর থেকে গোলাম ফারুক ওই তরুণীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ করছেন বলে এজাহারে তিনি অভিযোগ করেছেন।’

ওসি আরো বলেন, ‘তবে গোলাম ফারুকের স্থায়ী ঠিকানা অভিযোগকারী জানেন না বলে এজাহারে জানিয়েছেন। তরুণী জানিয়েছেন, রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় গোলাম ফারুকের নিজস্ব ফ্ল্যাট রয়েছে। সেখানে কেউ থাকে না। ফারুক মাঝে-মধ্যে বানারীপাড়া থেকে এসে ওই ফ্ল্যাটে ওঠেন। ওই ফ্ল্যাটেই তরুণীকে ধর্ষণ করা হয়। ওই তরুণী রাজধানীতে একটি বিউটি পার্লারে কাজ করেন। তরুণীর গ্রামের বাড়িও বরিশালে জেলায়।’

জানা গেছে, ওই মামলার ঘটনাকে কেন্দ্র করে বরিশাল বানারীপাড়া উপজেলায় আলোচনা-সমালোচনার ঝড় উঠেছে। তবে এলাকায় এই ঘটনা ছড়িয়ে পড়ার পর থেকে উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মো. গোলাম ফারুককে পাওয়া যাচ্ছে না। যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে তার ব্যক্তিগত মুঠোফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

কোন মন্তব্য নেই