পটিয়ায় দ্বিতীয় বিয়ের সম্মতি না পেয়ে স্ত্রীকে হত্যা: স্বামী আটক

0
.

পটিয়া (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধিঃ

চট্টগ্রামের পটিয়া উপজেলার হাজেরা বেগম (৪৫) নামে গৃহবধূকে গলায় ফাঁস দিয়ে শ্বাসরোধ হত্যা করার অভিযোগ উঠেছে স্বামীর বিরুদ্ধে।

আজ বুধবার ভোরে উপজেলার কেলিশহর গুচ্চগ্রাম এলাকায় এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে।  পুলিশ অভিযুক্ত স্বামী সামশুল আলম (৪০) আটক করেছে।

পটিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বোরহান উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান আজ সকালে মহিলার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

নিহত গৃহবধূ হাজেরা চট্টগ্রামের বাঁশখালী নাপুরা ৫ নং ওয়ার্ডের শেখের খীল এলাকার মৃত ফজল আহম্মদরে মেয়ে।  সামশুল আলমও একই এলাকার জাফর আহম্মদের পুত্র।

স্থানাীয়রা জানান, প্রায় ১২ বৎসর আগে হাজেরা-সামশুল আলমের সাথে পালিয়ে ২য় বিয়ে করে বাশঁখালী থেকে পটিয়া গুচ্চগ্রাম চলে আসে এবং দুজনে সংসার করে আসছে। তবে তাদের ১২ বৎসরে সংসারে কোন সন্তান নেই। নিহত হাজেরা বেগমের প্রথম সংসারে দুই পুত্র সন্তান রয়েছে বলা জানা গেছে।

প্রতিবেশীরা জানায় গত কিছুদিন যাবৎ সামশুল আলম দ্বিতীয় বিয়ে করার জন্য স্ত্রী হাজেরাকে নির্যাতন করে আসছে।  কিন্ত হাজেরা এতে সম্মতি না দেয়ায় তার উপর নির্যাতন বাড়তে থাকে।

পারিবারিক এসব বিরোধের জের ধরে আজ বুধবার ভোরের দিকে গলায় ফাঁস দিয়ে হত্যা করে পালিয়ে যাওয়ার সময় এলাকাবাসী তাকে আটক করে। পরে পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ তাকে আটক করে নিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে হত্যা মামলা দায়েরর প্রস্তুতি চলছে বলে জানান ওসি পটিয়া।

কোন মন্তব্য নেই