“ইসলামের নামে জঙ্গি তৎপরতা একটি আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্র”

0
.

র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)-এর মহাপরিচালক ড. বেনজীর আহমেদ বলেছেন, ইসলামের নামে দেশে জঙ্গিবাদী অপতৎপরতা চালানো হচ্ছে। এটি একটি আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্র। ইসলামি চিন্তাবিদদের এ বিষয়ে কথা বলতে হবে। কারণ জঙ্গিবাদকে ইসলাম কোনভাবেই সমর্থন করে না। জঙ্গিবাদের দর্শন ইসলামের সাথে যায় না। সম্মিলিতভাবে জঙ্গিবাদের প্রচার ও প্রসারের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে। তিনি বলেন, জঙ্গিবাদ ছড়ানোর অন্যতম জায়গা হচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়া। সোশ্যাল মিডিয়ার সব কিছুই বিশ^াস করা যাবে না। কোনটি মিথ্যা, কোনটি গুজব সে বিষয়ে যাচাই-বাছাই করতে হবে।

আজ মঙ্গলবার (১৪ জানুয়ারী) চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও এনিম্যাল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয় (সিভাসু) অডিটোরিয়ামে ২০১৯-২০২০ শিক্ষাবর্ষের নবাগত শিক্ষার্থীদের সমারম্ভ ২০২০ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. গৌতম বুদ্ধ দাশ-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত “মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদমুক্ত বাংলাদেশ হোক যুবসমাজের অঙ্গীকার” শীর্ষক সমারম্ভ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ পুলিশ, চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি খন্দকার গোলাম ফারুক ও চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মো: মাহাবুবর রহমান।

.

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন সিভাসু’র মাৎস্যবিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. এম. নূরুল আবছার খান ও ভেটেরিনারি মেডিসিন অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. আবদুল আহাদ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন ছাত্রকল্যাণ পরিচালক প্রফেসর ড. মোহাম্মদ মেজবাহ উদ্দিন।

ড. বেনজীর আহমেদ শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, মাদক এমন একটি জিনিস-যা যুবসমাজের বিকাশ ও সম্ভাবনা ধ্বংস করে দেয়। মাদকের কারণে পরিবেশ ও সমাজ ব্যবস্থা বিপর্যয়ের মধ্যে পড়ে। এটি আমাদের জন্য অভিশাপ। তিনি আরও বলেন, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী মাদকের সরবরাহ বন্ধে কাজ করছে। কিন্তু মাদকের চাহিদা বন্ধে সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে। কেননা চাহিদা বন্ধ না হলে সরবরাহ বন্ধ করা কঠিন হয়ে যাবে। মাদক নির্মূলে তিনি সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।

নবীন শিক্ষার্থীদের মাদক থেকে দূরে থাকার আহ্বান জানিয়ে র‌্যাবের মহাপরিচালক বলেন, তোমাদের হাতেই আগামীর বাংলাদেশ। তোমরা হচ্ছো বাংলাদেশের ঐতিহ্যের ধারক ও বাহক। তোমাদের রয়েছে অমিত সম্ভাবনা। তোমাদের লক্ষ্য হবে ‘গ্লোবাল সিটিজেন’ হবার। তোমরাই একদিন বিশ্বের নেতৃত্বে দেবে।

অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মীর্জা ফারুক ইমাম ও সিনিয়র শিক্ষকবৃন্দ, র‌্যাব-৭ চট্টগ্রামের অধিনায়ক লে: কর্ণেল মশিউর রহমান জুয়েল, সিএমপি’র অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার আমেনা বেগম, চট্টগ্রামের পুলিশ সুপার নূরে আলম মিনাসহ ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তা ও ছাত্রছাত্রীরা উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, ২০১৯-২০২০ শিক্ষাবর্ষে এ বিশ^বিদ্যালয়ের ৩টি অনুষদে (ভেটেরিনারি মেডিসিন অনুষদ, ফুড সায়েন্স এন্ড টেকনোলজি অনুষদ ও মাৎস্যবিজ্ঞান অনুষদ) মোট ২৪৫ শিক্ষার্থী ভর্তি হয়েছে। দেশে প্রথমবারের মতো ৭টি কৃষি সংশ্লিষ্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের গুচ্ছপদ্ধতির ভর্তি পরীক্ষার মাধ্যমে এসকল ছাত্রছাত্রী ভর্তি হওয়ার সুযোগ পেয়েছেন।

কোন মন্তব্য নেই