অস্ত্র মামলায় বাঁশখালীর লিয়াকত চেয়ারম্যান কারাগারে

0
.

চট্টগ্রামের বাঁশখালীর গণ্ডামারা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও দক্ষিণ জেলা বিএনপি নেতা লিয়াকত আলীকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।

আজ বুধবার (৪ মার্চ) বিকালে জামিন নিতে গেলে চট্টগ্রাম ১ম অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের ভারপ্রাপ্ত বিচারক গোলাম কবির তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

আদালতে পিপি মো. ফখরুদ্দিন জানান, ২০১৬ সালে গন্ডামারা ইউনিয়নে এস আলমের বিদ্যুৎ কেন্দ্রের বিরোধীতা করে ভূমি মালিকদের নিয়ে গড়ে তোলা আন্দোলনের সময় দায়ের করা একটি অস্ত্র মামলায় আদালত থেকে জামিন নিয়ে পলাতক ছিল লিয়াকত আলী। এ মামলায় লিয়াকত আলীর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি ছিল। আজ বুধবার বিকেলে আদালতে আত্নসমর্পণ জামিন আবেদন করেন লিয়াকত।শুনানি শেষে তার জামিন নামঞ্জুর করা হয়।

এর আগে গত বছরের ৩০ অক্টোবর চট্টগ্রাম নগরীর লালদীঘি এলাকা থেকে চেয়ারম্যান লিয়াকত আলীকে গ্রেপ্তার করে নগর গোয়েন্দা পুলিশ। পরে তাকে আদালতের নির্দেশে কারাগারে পাঠানো হয়। এরপর তার বিরুদ্ধে দায়ের করা ২৪টি মামলায় জামিন পেয়ে কারাগার থেকে মুক্তি পান লিয়াকত আলী।

প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালের ৪ এপ্রিল গন্ডামারা ইউনিয়নে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের বিরোধিতা করে বসতভিটা রক্ষা কমিটির ব্যানারে আন্দোলনে পুলিশের সঙ্গে ত্রিমুখী সংঘর্ষে চারজন নিহত হয়। সেই আন্দোলনকারী কমিটির আহ্বায়ক ছিলেন লিয়াকত আলী। ওই বছরের ১৬ মে লিয়াকতের বিরুদ্ধের অস্ত্র আইনে মামলাও হয়। এর পর বিএনপি নেতা লিয়াকত আলী গন্ডামারা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় হত্যা, রাষ্ট্রদ্রোহ, অস্ত্র আইন, নাশকতা, চেক জালিয়াতিসহ নানা অভিযোগে ২৪টি মামলা রয়েছে।

কোন মন্তব্য নেই