কমিউনিটি সেন্টার ও হাসপাতাল গুড়িয়ে দিয়েছে

মদুনাঘাটে বিচারাধীন জায়গায় অবৈধভাবে উচ্ছেদের অভিযোগ ওয়াসার বিরুদ্ধে

0
.

চট্টগ্রামের কাপ্তাই সড়কের মদুনাঘাট এলাকায় আদালতে বিচারাধীন পানি উন্নয়ন বোর্ডের নিজস্ব জায়গায় উচ্ছেদ অভিযান চালিয়ে রিলেশন পার্ক কমিউনিটি সেন্টার, একটি হাসপাতাল গুড়িয়ে দিয়েছে চট্টগ্রাম ওয়াসার ভ্রাম্যমান আদালত। এতে উক্ত জায়গার লীজ গ্রহীতাদের কোটি টাকার সম্পদহানী হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

তবে চট্টগ্রাম ওয়াসার দাবি তারা পানি উন্নয়ন বোর্ড থেকে জায়গাটি ক্রয় করেছেন। তা দখলমুক্ত করতে আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে উচ্ছেদ অভিযান চালানো হয়েছে।

,

লীজ গ্রহীতা হালদা কনসোর্টিয়াম কর্তৃপক্ষ জানান, আদালত থেকে স্থিতিশীল জায়গা ক্রয় করা কিংবা উচ্ছেদ করার সুযোগ নাই। তা’ছাড়া পানি উন্নয়ন বোর্ড অধিগ্রহণ কৃত জায়গা বিক্রি করতে পারে না।

হালদা কনসোর্টিয়াম চেয়ারম্যান নেছার উদ্দীন বুলু পাঠক ডট নিউজকে জানান, ২০০৬ সালে নবায়ন স্বাপেক্ষ লজি নিয়ে অস্থায়ী স্থাপনা নির্মাণের মাধ্যমে নকশানুযায়ী হাসপাতাল, স্কুল ও কমিউনিটি সেন্টার নির্মাণ করেছি। প্রথমে ৩ বছরের জন্য লীজ দেয় পাউবি। ২০০৯ সালে লীজের মেয়াদ শেষ হয়ে গেলে আবার ৫ বছরের জন্য লীজ নবায়ন করে পানি উন্নয়ন বোর্ড। ২০১১সালে লীজ মেয়াদ শেষ হবার পূর্বে পাউবো স্থায়ী কাল্পনিক অভিযোগ এনে দখল বুঝিয়ে দিতে চাপ দিলে আমরা সুপ্রীম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগে রীট মামলা দায়ের করি। পরে উক্ত মামলা দেওয়ানী আদালতে বিচার্য মর্মে উল্লেখে এখতিয়ারগত কারণে খারিজের পর হাটহাজারী সহকারী জজ আদালতে অপর মামলা ৩১৪/২০১৫ দায়ের করি। মামলায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের বিরুদ্ধে অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞার আবেদন করলে পানি উন্নয়ন বোর্ড বিবাদী হিসেবে আপত্তি দাখিল করেন। আদালত শুনানী অন্তে সার্বিক বিবেচনায় অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে শুনানী না হওয়া পর্যন্ত স্থিতিশীলবস্থা বজায় রাখার জন্য ১৫ সালের ৬ অক্টোবর আদেশ দেন।

.

পানি উন্নয়ন বোর্ড চলতি বছরের ১০ নভেম্বর বর্ণনা দাখিলের জন্য সময় চান এবং আগামী ১১ মার্চ বর্ণনা দাখিল ও অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞার শুনানীর জন্য দিন ধার্য্য আছে। এ অবস্থায় কোন নোটিশ ছাড়া ওয়াসা কিভাবে স্থাপনা গুড়িয়ে দিয়ে তা দখলে নেয় ?

আমরা গত ১৪ ডিসেম্বর আদালতের অন্তর্বতীকালীন নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে নগরীর বহদ্দারহাটস্থ নির্বাহী প্রকৌশলী-১ বরাবরে লিখিতভাবে অবহিত করি। কয়েক কোটি টাকার মালামাল ক্ষতি করেছে জানিয়ে তাদের বিরুদ্ধে আদালতে আদালত অবমাননা ও ক্ষতিপুরণ মামলা করবেন বলেও জানান নেছার উদ্দীন বুলু।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে চট্টগ্রাম ওসার এস্টেট কর্মকর্তা মোঃ আনোয়ারুল আজিম বলেন, এটা ওয়াসার ক্রয়কৃত জায়গা। পানি উন্নয়ন বোর্ড’র (পাউবো) কাছ থেকে চলতি বছর রেজিস্ট্রি করে নেয়া হয়েছে। এটা দীর্ঘদিন ধরে অবৈধ দখলে ছিল। নিয়মনুযায়ী আমরা দখলে নিয়েছি।

লীজের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, রিলেশন পার্ক ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের ব্যাপারে  তারা দীর্ঘ কয়েকবছর আগে এক বছরের জন্য লীজ নিয়ে বহুবছর ধরে অবৈধভাবে দখলে রেখেছিলেন জায়গাটি। দ্বিতীয়ত তাদের সাথে আমাদের কোন ঝামেলা নেই। তাদের কোন মতামত থাকলে তা পানি উন্নয়ন বোর্ড দেখবে।

কোন মন্তব্য নেই