রোগী পরিবহনে ডবলমুরিং থানার ফ্রি গাড়ি সার্ভিস চালু

0
.

লকডাউনে যান চলাচলে বিধিনিষেধ থাকায় রোগীরা রাস্তায় নির্বিঘ্নে যাতায়াত করতে সমস্যা হওয়ায় পুলিশ রোগী পরিবহনে এম্বুল্যান্স ও সিএনজি অটোরিকশার ব্যবস্থা করেছে। হাসপাতালে যেতে চাওয়া যে কোন রোগী বিনামূলে এসব গাড়ি ব্যবহার করতে পারবেন।

আজ বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) বিকেল ৩টায় ডবলমুরিং থানার আয়োজনে এই কার্যক্রমের উদ্বোধনের করেন চট্টগ্রাম নগর পুলিশের উপ-কমিশনার (পশ্চিম) মো. আব্দুল ওয়ারীশ। এসময় অতিরিক্ত উপ-কমিশনার পংকজ দত্ত, সিনিয়র সহকারী কমিশনার মো. মাহামুদুল হাসান মামুন, ওসি মোহাম্মদ মহসীন, পরিদর্শক (তদন্ত) মাসুদ রানাসহ পুলিশ কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

.

এ সময় ডিসি আব্দুল ওয়ারীশ বলেন, ‘যান চলাচল বন্ধ থাকায় রোগীরা সমস্যায় পড়েছেন। সামর্থ্যবানেরা এম্বুল্যান্স ডেকে যেতে পারলেও বিপাকে পড়েছেন মধ্য ও নিম্ন আয়ের মানুষেরা। তাদের সবার কথা বিবেচনা করেই আমাদের এই বিনামূল্যে পরিবহন সেবা।

ডবলমুরিং থানার ওসি মোহাম্মদ মহসীন জানান, করোনায় রোগীদের পরিবহন সঙ্কট নিরসনে ডবলমুরিং থানার পক্ষ থেকে উদ্যোগ নেওয়া হয়। থানার এই উদ্যোগে পাশে দাঁড়ান মাশরাফুল ইসলাম শাকিল। তিনি একটি এম্বুলেন্স প্রদান করেন। এরপর একে একে পাশে দাঁড়ায় সামাজিক সংগঠন ধনিয়ালাপাড়া বন্ধু মহল, মুহুরীপাড়া এলাকার ডলফিন ক্লাব, সিডিএ আবাসিক এলাকার আর.এস.কে ক্লাব, আগ্রাবাদের এস এস ট্রেডিং, পাহাড়তলী ঝর্ণাপাড়ার সায়মা প্রোপার্টিজ এবং পাঠানটুলি খান বাড়ির মোঃ আসাদ খান। তারা প্রত্যেকেই রোগী পরিবহনে একটি করে সিএনজি প্রদান করেন।

জানা গেছে, বিনামূল্যে এই পরিবহন সেবা ২৪ ঘণ্টাই চালু থাকবে। ০১৩২০০৫২৭৪৯ নাম্বারে ফোন করলেই গাড়ি বাসার সামনে এসে নিয়ে যাবে। আবার হাসপাতাল থেকে বাসায়ও পৌঁছে দিবে। আপাতত ডবলমুরিং থানা এলাকার মধ্যেই এই কার্যক্রম সীমাবদ্ধ থাকবে। তবে রোগীর অবস্থা বিবেচনায় বাইরেও এই সেবা প্রদান করা হবে। গণপরিবহন চলাচল বন্ধ থাকা পর্যন্ত সিএনজির সেবা পাওয়া যাবে। কিন্তু এম্বুল্যান্স সেবা অব্যাহত থাকবে।

কোন মন্তব্য নেই