অস্ট্রেলিয়ার হারে সেমিফাইনালে বাংলাদেশ

0
.

প্রথমবারের মতো আইসিসির কোনো টুর্নামেন্টের সেমিফাইনালে খেলার যোগ্যতা অর্জন করল টাইগাররা। সেটাও আবার চ্যাম্পিয়নস ট্রফির মতো গুরুত্বপূর্ণ প্রতিযোগিতায়। বাংলাদেশের ক্রিকেট সমর্থকদের চোখে এখন ফাইনাল খেলার একরাশ স্বপ্ন।

শনিবার অস্ট্রেলিয়াকে ৪০ রানের ব্যবধানে ইংল্যান্ড পরাজিত করায় বাংলাদেশ সেমিফাইনালে খেলার গৌরব অর্জন করেছে। বৃষ্টি আইনে ইংল্যান্ড অস্ট্রেলিয়াকে পরাজিত করায় টাইগাইরা আইসিসি চ্যাম্পিয়নস ট্রফির সেমিফাইন্যালে খেলার সুযোগ পেল। এখন টাইগারদের চোখে ফাইনাল খেলার স্বপ্ন।

ইংল্যান্ড ম্যাচের যখন ৪০.২ খেলা হয়েছে তখন আবার বৃষ্টির হানা। ইংল্যান্ডের তখন দরকার ৫৮ বলে ৩৮ রান। কিন্তু বৃষ্টি বাগড়ায় শেষ পর্যন্ত সমীকরণটা মেলাতেই হয়নি ইংলিশদের। টানা দুই ম্যাচ জিতে আগেই সেমিফাইনাল নিশ্চিত হয়েছিল ইংল্যান্ডের।

এর আগে শুক্রবার কার্ডিফে বাংলাদেশের কাছে হেরে বিদায় নিশ্চিত হয়েছে এক ম্যাচেও জয় না পাওয়া নিউজিল্যান্ডের। এই ম্যাচটা গুরুত্বপূর্ণ ছিল সেমিফাইনালের আশায় থাকা বাংলাদেশ আর অস্ট্রেলিয়ার। ইংল্যান্ড জিতে যাওয়ায় ৩ পয়েন্ট নিয়ে শেষ চার নিশ্চিত মাশরাফিদের।

এর আগে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে অস্ট্রেলিয়া নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ২৭৭ রান করে। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৭১ রান করেন হেড, এছাড়া ফিঞ্চ ৬৮, স্মিথ ৫৬, ওয়ারনার ২১ ও ম্যাক্সওয়েল ২০স রান করেন। আর ইংল্যান্ডের পক্ষে ৪টি করে উইকেট নেন উড এবং রসিদ।

২৭৮ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে স্ট্রোকস ও মরগানের ব্যাটে ভর করে এগিয়ে যাচ্ছিল। ৮৭ রান করে মরগান মাঠের বাহিরে চলে যান। এরপর স্ট্রোকসের সঙ্গী হন বাটলার। কিন্তু ৪০ ওভারের খেলা যখন চলছিল তখন শুরু হয় বৃষ্টি। ৪০.২ বলে থেমে যায় খেলা। দলের তখন প্রয়োজন ৫৮ বলে ৩৮ রান। কিন্তু বৃষ্টি থামছিল না। যার কারণে বৃষ্টি আইনে ৪০ রানে অস্ট্রেলিয়াকে পরাজিত করে ইংলিশরা। অস্ট্রেলিয়ার পরাজয়ে সেমিফাইনাল খেলা নিশ্চিত হয় টাইগারদের। অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে হাজলিউড ২টি এবং স্ট্রাক ১টি উইকেট লাভ করেন।

এর আগে শুক্রবার নিউজিল্যান্ডকে ৫ উইকেটে হারিয়ে সেমিফাইনালের স্বপ্ন বাঁচিয়ে রাখে টাইগাররা। সাকিব আল হাসান এবং মাহমুদ উল্লাহ রিয়াদের সেঞ্চুরির সুবাদে টাইগারদের কাছে হেরে চ্যাম্পিয়নস ট্রফি থেকে বিদায় নেয় এক ম্যাচেও না জেতা নিউজিল্যান্ড।

Advertisements

কোন মন্তব্য নেই

একটি মন্তব্য দিন