ত্রিপুরা পাড়ায় আরো ৪ শিশু হামে আক্রান্ত, হাসপাতাল ছেড়েছে ২০ জন

0
সীতাকুণ্ড (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধিঃ
সুস্থ্য হয়ে বাড়ী ফিরছে ত্রিপুরা পাড়ার ২০ শিশু। এসময় তাদের ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জাননো হয়।

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডের বার আউলিয়ার ত্রিপুরা পাড়ায় হাম রোগে আক্রান্ত হয়ে আরো ৪ শিশুকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আজ মঙ্গলবার (১৯ জুলাই) সকালে তাদের ফৌজদারহাটস্থ বিআইটিআইডি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অপর দিকে এ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ৬ শিশুর অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাদের চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে হত্যান্তর করা হয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সিভিল সার্জেন্ট আজিজুর রহমান সিদ্দিকী।
.

নতুনভাবে আক্রান্ত হয়ে ভর্তি হওয়া শিশুরা হচ্ছে, রুপালী (৫) মিলন (১২) পপি (২) এবং অঞ্জনা (২)।

এদিকে হাসপাতালের চিকিৎসাধীন থাকা শিশুদের মধ্যে ২০ জন শিশু সুস্থ্য আজ দুপুরে বাড়ী ফিরেছে বলে জানিয়েছেন ফৌজদারহাটস্থ বিআইটিআইডি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।
হাসপাতালের পরিচালক অধ্যাপক ডা.মামুনুর রশিদ বলেন, জ্বর নিয়ে ভর্তি হওয়া ত্রিপুরা পাড়ার শিশুদের মধ্যে ২০ জন শিশু এখন সম্পুর্ন সুস্থ্য। তাই তাদেরকে বাড়িতে পাঠানো হয়েছে।
হাসপাতাল ছাড়ার সময় দুপুরে সুস্হ্য ২০ শিশুর হাতে গোলাপ ফুল তুলে দিয়ে তাদেরকে অভিনন্দন জানান, ঢাকা মহাখালী স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের লাইন ডিরেক্টর প্রফেসর আবুল হাসেম খাঁন, চট্টগ্রামের সিভিল সার্জেন্ট আজিজুর রহমান সিদ্দিকী।
ইউনিসেফ এর একটি প্রতিনিধি দল ত্রিপুরা পাড়ায় গিয়ে আক্রান্ত শিশুদের ব্যাপারে খোঁজখবর নেন।

এর আগে দুপুরে এক সংবাদ সন্মেলনে সিভিল সার্জেন্ট আজিজুর রহমান সিদ্দিকী জানান, এ পর্যন্ত সোনাইছড়ি বার আউলিয়া ত্রিপুরা পাড়া থেকে হামে আক্রান্ত  মোট ৯২ শিশুকে হাসপাতালে বর্তি করা হয়, তাদের মধ্যে ৬৩ জন চমেক হাসপাতালে রাখা হয়। আজ ২০ জনকে রিলিজ দেওয়া হয়েছে। নতুন ভর্তি হওয়া আজ ৪ জন সহ ১৩ জন ফৌজদারস্থ বিআইটিআইডিতে আছে। এছাড়া আজ ৬ জনকে ফৌজদারহাট থেকে চমেকে রেপার করা হয়েছে। তবে আতংন্খের কোন কারণ নেই।

এদিকে আজ মঙ্গলবার দুপুরে ইউনিসেফ এর একটি প্রতিনিধি দল ত্রিপুরা পাড়ায় গিয়ে আক্রান্ত শিশুদের ব্যাপারে এবং বসবাসকারী উপজাতীদের ব্যাপারে খোঁজ খবর নেন।
এসময় উপস্থিত ছিলেন ইউনিসেফ এর চট্টগ্রাম জেলা অফিসার ফাহামিদা বানু ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তর (ইপিআর) উপ-পরিচালক ডাঃ শাহাজাহান।

কোন মন্তব্য নেই

একটি মন্তব্য দিন