আজ দেবীপক্ষের শুভ মহালয়া

0
.

দেবীপক্ষের সূচনা শুভ মহালয়া আজ। মহালয়া মানে দুর্গাপূজার দিন গোনা। মহালয়ার ৬ দিন পর মহাসপ্তমি, তাই দেবিকে আমন্ত্রণ। মহালয়ার তার চেয়ে বড় গুরুত্ব আছে। ত্রেতা যুগে ভগবান শ্রীরামচন্দ্র অকালে দেবিকে আরাধনা করেছিলেন লঙ্কা জয় করে সীতাকে উদ্ধারের জন্য।

শ্রীরামচন্দ্র অকালে-অসময়ে পূজা করেছিলেন বলে এই শরতের পূজাকে দেবির অকাল-বোধন বলা হয়। আসল দুর্গাপূজা হলো বসন্তে, সেটাকে বাসন্তি পূজা বলা হয়। মহালয়া শব্দের সন্ধি হল মহা+আলয়। মহা শব্দের অর্থ বিশাল এবং আলয় শব্দের বাড়ি বা গৃহ। দুর্গাপূজার দুই পক্ষের একটি পক্ষ হলো পিতৃপক্ষ, অন্যটি দেবীপক্ষ। পিতৃপক্ষের অবসান শেষে সূচনা হয় দেবীপক্ষের।

সনাতন ধর্মে তিনটি অমাবস্যার কথা উল্লেখ রয়েছে। এগুলো হল আলোক অমাবস্যা, মহালয়া অমাবস্যা এবং দীপান্বিতা অমাবস্যা। অমাবস্যা স্ত্রী লিঙ্গবাচক শব্দ। মহালয়া অমাবস্যা হয় আশ্বিন মাসে। অমাবস্যা তিথিতে পিতৃপক্ষের শেষ হয়, আর পরের দিন প্রতিপদ তিথিতে শুরু হয় দেবীপক্ষের।

আজ বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ পূজা উদ্যাপন পরিষদ চট্টগ্রাম জেলার উদ্যোগে দেবীপক্ষের উদ্বোধন শুভ মহালয়া।

জেলা পূজা পরিষদের পক্ষ থেকে শুভ মহালয়া উপলক্ষে বিভিন্ন কর্মসূচী গ্রহণ করা হয়েছে।

বোয়ালখালী উপজেলা করলডেঙ্গা পাহাড়স্থ চন্ডী তীর্থ মেধস আশ্রমে মহালয়া উদ্যাপন উপলক্ষে চন্ডী পূজা, অঞ্জলী প্রদান, আলোচনা সভা ও উপস্থিত ভক্তবৃন্দের মধ্যে মহাপ্রসাদ বিতরণ করা হবে।

মহালয়া ভিত্তিক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি থাকবেন বাংলাদেশ পুলিশ চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি এস.এম. মনির-উজ-জামান। সকাল ৮টায় আন্দরকিল্লা চত্বর হইতে জেলা পূজা পরিষদের উদ্যোগে বাসযোগে শুভযাত্রার শুরু হবে।

মেধস আশ্রমে গমনেচ্ছুক ভক্তদের সকাল ৮টার মধ্যে আন্দরকিল্লা চত্বর সমবেত হওয়ার জন্য চট্টগ্রাম জেলা পূজা পরিষদের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক যথাক্রমে শ্যামল কুমার পালিত এবং অসীম কুমার দেব অনুরোধ জানিয়েছেন।

কোন মন্তব্য নেই