বেগম জিয়ার রূপরেখা না মানলে কঠোর আন্দোলন-শামসুজ্জামান দুদু

0
.

সরকারের বিরুদ্ধে কঠোর আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দিয়ে বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু বলেছেন, লন্ডন সফরত বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া খুব শিগগিরই দেশে ফিরে সহায়ক সরকারের রুপরেখা দিবেন। সরকার সেটি মেনে নিলে ভালো। না মানলে তাদেরকে ভয়াবহ আন্দোলনের মুখোমুখি হতে হবে।

রবিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে গণ সংস্কৃতি দলের উদ্যোগে ‘চাল ও শিশু খাদ্যসহ নিত্য পণ্যের মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে এবং রোহিঙ্গা সংকট মোকাবিলায় জাতীয় ঐক্য গঠনের দাবিতে’ এক মানববন্ধন ও সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্দেশে দুদু বলেন,‘আপনি শেখ হাসিনা হয়তো ভুলে গেছেন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া আপোষহীন। বিএনপি ও ২০ দলের পেছনে ফেরার কোন রাস্তা নেই। মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য যা কিছু করার দরকার তাই করবে বিএনপি। এজন্য আপনাকে বলছি অহংকার করার কিছু নেই সমঝোতায় আসুন। অন্যথায় আপনাকে ইতিহাসের ভয়াবহ আন্দোলনের মুখোমুখি হতে হবে।’

আওয়ামী লীগ যখনি ক্ষমতায় আসে দেশে দুর্ভিক্ষের অবস্থা সৃষ্টি হয় আইনশৃঙ্খলা বলতে কিছু থাকে না এমন দাবি করে ছাত্রদলের সাবেক এই সভাপতি বলেন, ‘বর্তমানে দেশের মানুষ এক ধরনের নীরব দুর্ভিক্ষের মুখোমুখি হয়েছে। ১৯৭০ সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আট আনা (৫০ পয়সা) কেজি চাল খাওয়াবেন বলে ওয়াদা করেছিলেন। ৭২ পরবর্তী সময়ে যখন প্রধানমন্ত্রী হয়েছিলেন তখন দেশে একটি বড় ধরনের দুর্ভিক্ষ হয়েছিল। বর্তমানে তার কন্যা (শেখ হাসিনা) ২০০৮ সালে ক্ষমতায় যাবার আগে ১০ টাকা কেজি চাল খাওয়াবেন বলে ওয়াদা করেছিলনে। বাজারে চালের দাম প্রায় ৭০ টাকা কেজি। এটি সাধারণ মানুষের ক্রয় ক্ষমতার বাইরে চলে গেছে।’

প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘খালেদা জিয়াও দেশ পরিচালনা করেছেন। আপনি দেশ পরিচালনায় ব্যর্থ হলে তার (খালেদা জিয়া) পরামর্শ নিন। এত অহংকার করার কিছু নেই। নিউয়র্কে বসে আপনি যে সব কথা বলছেন আমরা লজ্জিত।’

দেশের চলমান রোহিঙ্গা সংকট প্রসঙ্গে দুদু বলেন, ‘বিএনপি আগেই বলেছিল অসহায় রোহিঙ্গাদের জন্য বর্ডার খুলে দিন, আপনারা খুলতে চাননি, পড়ে তাদেরকে আসতে দিয়েছেন। তারা আমাদের দেশে থাকবে। তাই তাদেরকে ফিরিয়ে দিতে কূটনৈতিক অথবা সামরিক যে পদক্ষেপই হোক আমরা তার দাবি জানাচ্ছি।’

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি এস আল-মামুনের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে আরও বক্তব্য দেন- বিএনপির প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক এবিএম মোশাররফ হোসেন, তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সহ-সম্পাদক সাংবাদিক নেতা কাদের গনি চৌধুরী, ন্যাপের মহাসচিব এম গোলাম মোস্তফা ভূইয়া, বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য ইসমাইল হোসেন চৌধুরী বেঙ্গল, এনডিপি’র ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মঞ্জুর হোসেন ঈসা, দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও আন্দোলনের সভাপতি কে.এম রকিবুল ইসলাম রিপন, বংশাল থানা কৃষক দলের সভাপতি আব্দুর রাজি প্রমুখ।

কোন মন্তব্য নেই