সংখ্যালঘুরা এখন শান্তিতে নেই- রানা দাশগুপ্ত

0
Pic 02
দেশব্যাপী গুপ্ত হত্যা এবং হত্যাকারীদের গ্রেফতার ও শাস্তির দাবীতে ছাত্র-যুব ঐক্য পরিষদ চট্টগ্রাম আয়োজিত মিছিল।

পাবনা, ঝিনাইদহ, নাটোর, বান্দরবন জেলাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে হিন্দু পুরোহিত, বৌদ্ধ ভিক্ষু, খ্রিষ্টান দোকানিসহ নিরীহ এবং ধর্মাচরনের সাথে যুক্ত ব্যক্তিদের নির্মমভাবে কুপিয়ে খুন করা হচ্ছে। হীন রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে এসকল হত্যাকান্ড। সংখ্যালঘু জনগোষ্ঠীকে ভীত-সন্ত্রস্ত করে দেশত্যাগে বাধ্য করাই এর লক্ষ্য। সরকার ও প্রশাসনের পক্ষ থেকে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহন না করলে সংখ্যালঘু জনগোষ্ঠী তাদের প্রতি আস্থা হারাবে।

দেশব্যাপী গুপ্ত হত্যার প্রতিবাদে এবং হত্যাকারীদের গ্রেফতার ও শাস্তির দাবীতে শনিবার বিকালে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব চত্বরে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক এড্ রানা দাশগুপ্ত একথা বলেন।

বাংলাদেশ ছাত্র-যুব ঐক্য পরিষদ চট্টগ্রাম মহানগর, উত্তর-দক্ষিণ জেলা শাখার যৌথ উদ্দ্যোগে আয়োজিত এ মানবন্ধনে রানাদাশ আরো বলেন, দেশে সংখ্যালঘু জনগোষ্ঠী শান্তিতে নেই। কোথাও তাদের নিরাপত্তা নেই।

সংগঠনের মহানগর শাখার সভাপতি বিজয় কৃষ্ণ দাশের সভাপতিত্বে এবং সাধারন সম্পাদক এডভোকেট রুবেল পালের পরিচালনায় সমাবেশে প্রধান বক্তা ছিলেন- বাংলাদেশ ছাত্র-যুব ঐক্য পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি শ্যামল কুমার পালিত।

তিনি বলেন- একদিকে সংখ্যালঘু জনগোষ্ঠীর ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের সাথে সংশ্লিষ্টদের টার্গেট করে হত্যা করা হচ্ছে আবার অন্য দিকে বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের সাধারন সম্পাদক এডভোকেট রানা দাশগুপ্তের নামে অপপ্রচার চালিয়ে তাঁকে হেয় প্রতিপন্ন করার চেষ্টা করা হচ্ছে। যা দু:খজনক ও অনভিপ্রেত। তিনি সকল হত্যাকান্ডের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবী জানান এবং রানা দাশগুপ্তের বিরুদ্ধে অপপ্রচারের নিন্দা জানান।

সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ চট্টগ্রাম মহানগর সভাপতি প্রকৌশলী পরিমল কান্তি চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক এড্ নিতাই প্রসাদ ঘোষ, দক্ষিণ জেলার সভাপতি রনজিৎ কুমার চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক তাপস হোড়, অধ্যাপিকা বিজয় লক্ষী দেবী, যুগ্ন সম্পাদক প্রদীপ চৌধুরী, চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্র-যুব ঐক্য পরিষদের সহ সভাপতি স্বরূপ চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক শ্রীপ্রকাশ দাশ অসিত, দক্ষিণ জেলার ছাত্র-যুব ঐক্য পরিষদের সভাপতি অসীম কুমার দেব, আইনজীবি ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অনুপম চক্রবর্তী, বিশ্বজিত পালিত, অলক মহাজন, উত্তম শর্মা, ঁজনি দে, রিমন মুহুরী, এড্ রাসেল সরকার, সিজার বড়–য়া, দোলন বৈষ্ণব, লিটন ভট্টাচার্য্য, সুজন পাল, টিংকু চক্রবর্তী, কৃষ্ণ বণিক, ভানু রঞ্জন দে, সুমন চাকমা, লিংকন চক্রবর্তী, রেবতী মোহন নাথ, পংকজ বৈদ্য সুজন, এড্ তুষার সিংহ হাজারী, টি কে সিকদার, রতন আচার্য, ডা: আর কে রুবেল, রাজু দাশ হিরু, লিটন সরকার, দীপক পাল, অর্ক মিত্র, শেখর দত্ত, এড্ টিটু দাশ, ডা: বিধান মিত্র, সরোজ বৈদ্য, ডা: প্রভাষ, দেবাশীষ চৌধুরী পিকলু, তাপস শীল, সুজন পাল, সজীব দেব সুমু, গোপাল দাশ টিপু, মানস চক্রবর্তী, বিপুল ঘোষ বিলু, নিপু বৈদ্য, বিনোদ বৈদ্য, উজ্জ্বল সেন বাবুপ্রমূখ। মানববন্ধন শেষে এক বিক্ষোভ মিছিল প্রেসক্লাব চত্বর হতে আন্দরকিল্লা মোড়ে এসে শেষ হয়।

Advertisements

কোন মন্তব্য নেই

একটি মন্তব্য দিন