তুরস্কে সেনা অভ্যুত্থান চেষ্টা ব্যর্থ, নিহত শতাধিক

0
TURKY
তুরস্কের প্রেসিডেন্ট তাইয়েব এরদোয়ানকে ক্ষমতাচ্যুত করতে দেশটির সেনাবাহিনীর অভ্যুত্থান চেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে।

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট তাইয়েব এরদোয়ানকে ক্ষমতাচ্যুত করতে দেশটির সেনাবাহিনীর অভ্যুত্থান প্রচেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে। এ ঘটনায় শতাধিক বিদ্রোহী সেনাসদস্য নিহত ও দেড় হাজারের বেশি সেনাসদস্যকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

দেশটির নবনিযুক্ত ভারপ্রাপ্ত সেনাপ্রধান উমিত দুনদার রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে দেওয়া এক ভাষণে বলেন, সেনাবাহিনীর একটি অংশের অভ্যুত্থানের প্রচেষ্টাকে পুরোপুরি ব্যর্থ করে দেওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় ১০৪ বিদ্রোহী সেনাসদস্য নিহত হয়েছেন এবং আঙ্কারা, ইস্তাম্বুলসহ দেশের বিভিন্নস্থান থেকে ১ হাজার ৫৬৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

ড়ড়
সেনাবাহিনীর অভ্যুত্থান প্রতিহিত করছে প্রেসিডেন্ট তাইয়েব এরদোয়ান বাহিনী।

আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের ফাদি হাকুরা প্রেসিডেন্ট এরদোয়ানের উদ্বৃতি দিয়ে বার্তা সংস্থা বিবিসিকে জানান, সেনা অভ্যুত্থানের ‘প্রচেষ্টা পুরোপুরি দমন’ করা হয়েছে।

অপরদিকে প্রেসিডেন্ট এরদোয়ানের উদ্বৃতি দিয়ে সিএনএন জানিয়েছে, দেশ পুরোপুরি সরকারের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। পেসিডেন্ট এরদোয়ান সেনা অভ্যুত্থানের জন্য তার প্রতিপক্ষ ফতেউল্লাহ গুলেনকে দায়ি করেন। তবে এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন তিনি।

অভ্যুত্থান চেষ্টা ব্যর্থ হলেও দেশটিতে রাজনৈতিক অস্থিরতা বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

জাতির উদ্দেশ্যে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট তাইয়েব এরদোয়ানের ভাষন।

এদিকে অভ্যুত্থান চেষ্টার ঘটনায় দেশটিতে কারফিউ জারি করা হলেও তা পালনে কোনো ধরনের জোর জবরদস্তি করা হচ্ছে না। বরং এরদোয়ানের সমর্থকদের রাস্তায় উল্লাস করতে দেখা গেছে। তারা ট্যাংকের ওপর উঠে ছবি তুলছেন।

তুরস্কের জনজীবনও ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হতে শুরু করেছে। সাধারণ মানুষ ঘর থেকে বের হয়ে আসতে শুরু করেছেন। দোকানপাটও খুলতে শুরু করেছে। ইস্তাম্বুলের রাস্তায় কিছু ব্যক্তিগত গাড়ি ও টেক্সি দেখা যাচ্ছে। সকাল থেকে এসব রাস্তা বলতে গেলে প্রায় খালিই ছিল।

বিবিসির সংবাদদাতা ক্যাথি ওয়াটসন জানান, ঘটনার প্রেক্ষিতে জরুরি পার্লামেন্ট বৈঠক ডেকেছে দেশটির সরকার।

13680848_1076142725768166_5938140107886640161_nশুক্রবার সেনাবাহিনীর একটি অংশ প্রেসিডেন্ট তাইয়েব এরদোয়ানকে ক্ষমতাচ্যুত করার জন্য অভ্যুত্থানের চেষ্টা করে। তবে এরদোয়ান সমর্থকরা অভ্যুত্থানের বিরুদ্ধে রাস্তায় নেমে আসলে বিদ্রোহীরা পিছু হটতে বাধ্য হয়। ঘটনার সময় দেশটির প্রেসিডেন্ট অবকাশ যাপনে ছিলেন। ঘটনার পর তিনি ইস্তাম্বুলে ফিরে আসেন। তিনি সেনা অভ্যুত্থান প্রচেষ্টাকে ‘বিশ্বাসঘাতকতা’ উল্লেখ করে বলেন, ‘সেনাবাহিনীতে শুদ্ধি অভিযান চালানো হবে।’

এদিকে এ ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে দেশটিতে নতুন ভারপ্রাপ্ত সেনাপ্রধান নিয়োগ দেওয়া হয়। বেশ কয়েকজন সামরিক ব্যক্তিকে বরখাস্ত করা হয়েছে। দেড় হাজার সামরিক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে দেশটির সরকারি কর্মকর্তার উদ্বৃতি দিয়ে জানিয়েছে এএফপি।

Advertisements

কোন মন্তব্য নেই

একটি মন্তব্য দিন