বার্সা-রিয়াল-অ্যাটলেটিকোর হিসাবটা এখন কী?

0
লিগ শিরোপা কে জিতবে তা জানতে অপেক্ষা করতে হবে শেষ ম্যাচ পর্যন্ত।

জমে উঠেছে লা লিগা। এক মাস আগেও বার্সেলোনাকেই চ্যাম্পিয়ন ধরে নিয়েছিল সবাই। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের চেয়ে ৯ পয়েন্ট এগিয়ে ছিল বার্সা। আর রিয়াল মাদ্রিদের চেয়ে তো একপর্যায়ে ১২ পয়েন্ট এগিয়ে গিয়েছিল তারা। কিন্তু একের পর এক নাটকীয় ঘটনায় সেই এক ঘোড়ার দৌড় রূপান্তরিত হয়েছে জমজমাট ত্রিমুখী লড়াইয়ে। এখন শিরোপা নিষ্পত্তির জন্য সবাইকে অপেক্ষা করতে হবে ১৫ মে, লা লিগার শেষ ম্যাচ পর্যন্ত।

৩৬ ম্যাচ শেষে লা লিগায় শীর্ষে এখন বার্সেলোনা। কাতালান ক্লাবটির পয়েন্ট ৩৬ ম্যাচে ৮৫। তাদের পরে থাকা অ্যাটলেটিকোর পয়েন্টও ৮৫। কিন্তু বার্সেলোনার সঙ্গে মুখোমুখি লড়াইয়ে পিছিয়ে থাকায় দ্বিতীয়স্থানেই থাকতে হচ্ছে ডিয়েগো সিমিওনের দলকে। আর ৮৪ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে আছে রিয়াল মাদ্রিদ। লিগে আর বাকি মাত্র দুই রাউন্ড। দুই রাউন্ডে তিন দলের ছয় ম্যাচেই নির্ধারিত হবে স্পেনে এবার শিরোপা উৎসব করবে কারা।

তিন দলের মধ্যে সবচেয়ে সুবিধাজনক অবস্থায় আছে বার্সা। একমাত্র বার্সেলোনাকেই প্রতিদ্বন্দ্বীরা কী করছে, সেটি নিয়ে চিন্তা করতে হবে না। নিজেদের দুটি ম্যাচ জিতলেই সরাসরি লিগ শিরোপা কাতালানদের। দুই ম্যাচেই সহজ প্রতিপক্ষ পেয়েছে তারা। ৮ মে নিজেদের মাঠে এস্পানিওল। নগর প্রতিদ্বন্দ্বীরা বার্সাকে সব সময় চ্যালেঞ্জ ছুড়তে পছন্দ করে, কিন্তু এবার লিগে ভালো করছে না এস্পানিওল। লিগ টেবিলে ১৫তম স্থানে আছে তারা।

শেষ ম্যাচেও সহজ প্রতিপক্ষ বার্সেলোনার। ১৫ তারিখ তারা খেলবে গ্রানাডার মাঠে। গ্রানাডাও কোনোভাবেই শক্ত কোনো প্রতিপক্ষ নয়, লিগে ১৬তম দল তারা। তাই খুব খারাপ কোনো দিন না কাটালে বার্সেলোনার টানা দ্বিতীয়বারের মতো লিগ শিরোপা এক প্রকার নিশ্চিত।
অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের কাজটি একটু কঠিন। নিজেদের ম্যাচ দুটি শুধু জিতলেই হবে না, অন্তত এক ম্যাচে যেন বার্সেলোনা হোঁচট খায়, সে আশাও করতে হবে তাদের। লিগে অ্যাটলেটিকোর পরবর্তী ম্যাচ লিগের তলানিতে থাকা লেভান্তের সঙ্গে। সে ম্যাচটি লেভান্তের মাঠে খেলতে হলেও এ ম্যাচ নিয়ে কোনো দুশ্চিন্তা থাকার কথা নয় রোজি ব্লাঙ্কোদের। কিন্তু লিগের শেষ ম্যাচটি সিমিওনের জন্য ভালোই দুশ্চিন্তা জাগানোর কথা। সেদিন সেল্টা ভিগোর সঙ্গে খেলবে অ্যাটলেটিকো, সেল্টা কিন্তু আছে পয়েন্ট টেবিলের পাঁচে। সেদিন বড় এক পরীক্ষাই দিতে হবে অ্যাটলেটিকোকে।
সে তুলনায় রিয়ালের কাজটি আরও কঠিন। নিজেদের ম্যাচ দুটি তো জিততেই হবে, সে সঙ্গে দুই প্রতিদ্বন্দ্বীর অমঙ্গলও চাইতে হবে তাদের। লিগে লস ব্লাঙ্কোদের পরের ম্যাচ ভ্যালেন্সিয়ার সঙ্গে, যারা লিগে ৮ম স্থানে আছে। তবে ম্যাচটি বার্নাব্যুতে হওয়ায় বাড়তি আত্মবিশ্বাস পাচ্ছে রিয়াল। পরের ম্যাচটি অবশ্য প্রতিপক্ষের মাঠেই খেলতে হবে রিয়ালকে। সেদিন দেপোর্তিভো লা করুনিয়ার মাঠে গিয়ে খেলবে রিয়াল। এই মাঠেই বার্সেলোনা দেপোর্তিভোকে ৮-০ গোলে হারিয়েছে কদিন আগে। রিয়ালের জন্য প্রতিপক্ষের চেয়ে বেশি কঠিন পয়েন্টের সমীকরণ।
লা লিগায় পরবর্তী রাউন্ডের খেলা হবে ৮ মে। শেষ রাউন্ড খেলা হবে ১৫ মে। দুই রাউন্ডের খেলাই হবে বাংলাদেশ সময় রাত নয়টায়। নিয়ম অনুযায়ী শেষ দুই রাউন্ডের সবগুলো ম্যাচ একই সময়ে শুরু হবে।

Advertisements

কোন মন্তব্য নেই

একটি মন্তব্য দিন