ট্যাটু নিয়ে যত ভুল ধারণা!

0

ট্যাটু শিল্প বর্তমানে সারা বিশ্বে তরুণ সমাজের মধ্যে এক অন্যরকম আলোড়ন সৃষ্টি করেছে। মূলত এটি একটি সৌখিনতা মাত্র। আমাদের দেশে উঠতি বয়সের তরুণ-তরুণীদের মধ্যেও শখের বশে অনেককেই এই ট্যাটু করতে দেখা যাচ্ছে। খোলা পিঠ জুড়ে ডানা ছড়ানো ফিনিক্স, বা গোড়ালির কাছে উড়ছে ছোট্ট প্রজাপতি।

ট্যাটু শুধু এখনকার ফ্যাশনই নয়, বহু আগে থেকেই কোনও কিছু চিহ্নিত করতেও করা হত ট্যাটু। তবে ট্যাটু করার ইচ্ছা থাকলেও বেশি কিছু প্রচলিত ভুল ধারণার কারণে অনেকেই পিছিয়ে আসেন শেষ মুহূর্তে। এই সব ভুল ধারণার কোনও ভিত্তি নেই। জেনে নিন এমনই কিছু ভুল ধারণা।

১৮ বছর বয়সের নীচে ট্যাটু করা যায় না: এর কোনো ভিত্তি নেই। ১৮ বছরের কম বয়সে ট্যাটু করালে আলাদা করে স্বাস্থ্যের সমস্যা হওয়ার সম্ভাবনা নেই।

ট্যাটু থাকলে রক্তদান করা যায় না: ট্যাটু করার পর শুধু প্রথম ৩ মাস রক্ত দেওয়া যায় না। তারপর অবশ্যই রক্তদান করতে পারেন স্বাভাবিকভাবেই।

ট্যাটু মুছে ফেল যায় না: অনেকেই মনে করেন ট্যাটু মুছে ফেল যায় না, এটা একটা ভুল ধারণা। লেজার ট্রিটমেন্টের সাহায্যে ট্যাটু মুছে ফেলা যায়। কোনো দাগও থাকে না।

বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ট্যাটু হালকা হয়ে যায়: এর কোনো কারণ নেই। তবে ট্যাটুর যত্ন প্রয়োজন। দিনে এক বার অন্তত ট্যাটু করা ত্বকে ময়শ্চারাইজার মাসাজ করুন।

ত্বকের অ্যালার্জি ও রক্তে বিষক্রিয়া: অভিজ্ঞ আর্টিস্ট ও সঠিক হাইজিন মেনে চললে এমন সম্ভাবনা প্রায় নেই বললেই চলে।

তবে ট্যাটু করানো বা ট্যাটু তোলার ব্যাপারে কিছু বিষয় অবশ্যই মেনে চলা উচিৎ :

. বাজারে চলতি সস্তা পার্লারে গিয়ে বিপদ ডাকবেন না।
• যতটা সম্ভব ছোট আকারের ট্যাটু করতে চেষ্টা করুন।
• সবচেয়ে আগে দেখে নিন সূচ জীবাণুমুক্ত করা হয়েছে কিনা।
• চেষ্টা করুন কালো বা নীল রঙ বেশি ব্যবহার করতে।
• ট্যাটু তুলতে হলে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত কোনও সংস্থা বা ডাক্তারের কাছেই যান।

কোন মন্তব্য নেই

একটি মন্তব্য দিন