কেরাটিন ট্রিটমেণ্ট চুলের জন্য

0
.

আপনার চুলের জৌলুস কি দিন দিন কমে যাচ্ছে? নানা রকম ঘরোয়া টোটকা দেওয়ার পরেও চুলে প্রাণ নেই? কিছুদিন পরপরই চুলের ডগা ফেটে যাচ্ছে? উপায় একটাই, কেরাটিন ট্রিটমেন্ট। স্বভাবতই আপনার মনে প্রশ্ন জাগতে পারে কেরাটিন কী এবং এটি কীভাবে কাজ করে। কেরাটিন এক ধরনের প্রোটিন যা আমাদের চুলে, নখে এবং দাঁতে থাকে | কিন্তু পলিউশন, কেমিক্যাল প্রোডাক্টের ব্যবহার, ঘন ঘন হেয়ার ড্রায়ার ব্যবহার, চুল থেকে কেরাটিনের মাত্রা কমিয়ে দেয় একটু একটু করে। সেই ক্ষতি পূরণ করতেই এই ট্রিটমেন্ট। কেরাটিন ট্রিটমেন্ট করতে দু-তিন ঘন্টা সময় লাগে তবে বড় চুল হলে স্বাভাবিক ভাবেই সময় লাগবে আরও বেশি। এই প্রোটিন চুলের গোড়া থেকে ডগা অবধি অ্যাপ্লাই করা হয় এবং তারপর সিলিং করা হয়, এতে কেরাটিন চুলের ভিতর ভালো ভাবে প্রবেশ করে। ট্রিটমেন্টের পর চুলে একটা ন্যচারাল শাইন আসে। শ্যাম্পুর সঙ্গে কন্ডিশনার এবং হেয়ার সিরামও ব্যবহার করতে হবে। তবে যতটা সম্ভব হিট ড্রাই বা যে কোনো হিটেড স্টাইলিং প্রোডাক্ট এড়িয়ে চলুন।

কেরাটিন ট্রিটমেণ্টের উপকারিতাঃ

যে কোনও চুলের জন্যেই কেরাটিন ট্রিটমেন্ট আদর্র্শ। বিশেষত যাদের ড্যামেজড বা কোঁকড়ানো চুল তাদের জন্য খুব ভালো। কেরাটিন অ্যাপ্লাই করার পর সহজেই চুলে জট পড়বে না বা ঘন ঘন চুলের ডগাও ফাটবে না, চুল পড়ার সমস্যাও একেবারেই কমে যাবে। কেরাটিন ট্রিটমেন্টের ফলে যেসব উপকার পাওয়া যেতে পারে তাদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলঃ

– চুল স্ট্রং এবং ময়েশ্চারাইজ করে।

– চুলে যেকোনো ধরনের স্টাইল করা যেতে পারে।

– চুলে ফ্রিজিনেস কম দেখা দেয়।

– চুলে তাপ ও ​​আর্দ্রতার প্রভাব সহজে পড়ে না।

– গুরুতরভাবে ক্ষতিগ্রস্ত চুলকে রিপেয়ার করে।

– নিয়মিত উত্তপ্ত স্টাইলিং সরঞ্জাম ব্যবহার করার প্রয়োজন হ্রাস করে।

কিছু বিড়ম্বনা এবং সতর্কতাঃ

সব কিছুরই ভালো এবং খারাপ উভয় দিকই থাকে। কিন্তু ভয়ের কিছু নেই খারাপের চেয়ে এর ভালো দিকই বেশি।

– কয়েক মাস পর পর নিয়মিত এই ট্রিটমেন্ট করাতে হবে। যারা চুলের ঘন ঘন কালার করান তাদের কিন্তু কেরাটিনের এফেক্ট বেশি দিন থাকবে না, তাই কালার করে তারপর এই ট্রিটমেন্ট করান।

-এই ট্রিটমেন্ট করার পর তিন বা চার দিনের জন্য আপনার চুল ধোয়া উচিত নয়।

– এই ট্রিটমেন্টের এফেক্ট বজায় রাখতে সোডিয়াম-সালফেট মুক্ত শ্যাম্পু ব্যবহার করা উচিত।

এখন আমরা কয়েকটি কেরাটিন ট্রিটমেন্ট কিটের সাথে পরিচিত হবো। তবে আমার পরামর্শ চাইলে আমি ২টি কথা বলবো। প্রথমত বাসায় করার চেয়ে কোনো ভালো পার্লারের দ্বারস্থ হওয়া ভালো। দ্বিতীয়ত বাসায় যদি করতেই চান তবে এই কিট আমি দেশ থেকে কেনার পক্ষপাতী একেবারেই নই। কেননা এতো নকলের ছড়াছড়ির মাঝে আসলটা খুঁজে পাওয়ায় মুশকিল আর চুলের প্রোডাক্টের ব্যাপারে নো কম্প্রোমাইজ।

প্রসঙ্গত প্রোডাক্টগুলো সম্পর্কে আপনাদের জিজ্ঞাসা থাকতেই পারে। কোথা থেকে পাবেন? আদৌ আসল পণ্য নাকি নকল পণ্য কিনছেন? দাম কত? আপনার সুবিধার্থে সাজগোজ পুরো প্রক্রিয়াটি সহজতর করে তুলেছে SAPPHIRE ( সাফায়ার) এর মাধ্যমে। কেরাটিন ট্রিটমেন্ট সমৃদ্ধ হেয়ার প্রোডাক্ট সম্পর্কে জানতে এবং কিনতে, এই লিঙ্কে ক্লিক করুন।

শুরু করবো আমার নিজের পছন্দের একটি প্রোডাক্ট দিয়ে। কিটটির নাম হচ্ছে ওরগানিক্স কোম্পানির Ever Straight Brazilian Keratin Therapy 3 Pc kit এবং এটি ব্যবহারের প্রসিডিওরও আমি বলে দেবো। একবার ব্যবহার করে তার পরবর্তী দিন গুলোতে আপনার ঝরঝরে চুলের বাহারে মুগ্ধ করবেন সবাইকে। এতে ৩ পিস কিট আছে।

Ever Straight Brazilian Keratin Therapy Shampoo: প্রথমে ভেজা চুলে এই শ্যাম্পু অ্যাপ্লাই করুন। তারপর ম্যাসেজ করে চুলে ফেনা তুলুন। এখন পানি দিয়ে এমন ভাবে ধুয়ে ফেলুন জেন কোন শ্যাম্পুর কণা পর্যন্ত না রয়ে যায়।

Ever Straight Brazilian Keratin Therapy Conditioner: এবার চুল কন্ডিশন করার পালা। চুলের আগা অবধি Organix কন্ডিশনার প্রয়োগ করুন। তবে খেয়াল রাখবেন যেন গোড়াতে না লাগে। ৩-৫মিনিট অপেক্ষা করুন তারপর পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে চুল ধুয়ে ফেলুন।

Ever Straight Brazilian Keratin Therapy Anti-Breakage Serum: এরপর চুলটি তোয়ালে দিয়ে হালকা ভাবে মুছে ফেলুন অল্প পরিমাণ এই সিরাম হাতের তালুতে নিন। তারপর ২ হাতে ঘষে চুলের উপরিভাগে প্রয়োগ করুন।

এরপর চলে আসি একটি সাড়া জাগানো কেরাটিন ট্রিটমেন্ট কিটের পরিচিতিতে। Salon Favorite Keratin Treatment Do-It-Yourself Jumbo All-In-One Kit। এটিকে জাম্বু বলা হয়েছে কেননা এতে থাকা উপাদান আপনি অনায়াসে ১ বছর পর্যন্ত ব্যবহার করতে পারবেন। এতে আছে ১ বোতল Keratin Treatment Purifying Shampoo, Keratin Treatment Hair Reconstructor যা ড্যামেজড চুলকে রিকন্সট্রাক্ট, রিপেয়ার এবং প্রটেক্ট করে আর আছে Daily Shampoo এবং Daily Conditioner.

আশা করি আমার এই তথ্য আপনাদের উপকারে আসবে। চটজলদি চুলের স্বাস্থ্য ফিরিয়ে আনতে কেরাটিন ট্রিটমেন্টের কোনও জুড়ি নেই, তাই সময় নষ্ট না করে আজকেই এটা করিয়ে ফেলুন।

কোন মন্তব্য নেই