ছোট্ট একটা সমুদ্র

0
.

ঘরে ঢুকতেই যদি স্বাগত জানায় এক টুকরো সমুদ্র। তাও আবার নিজের, সোনার মতো ঝকঝকে মাছগুলো মনের সুখে ঘুরে বেড়াচ্ছে, আপনাকে দেখেই যেন সে-কি আনন্দ তাদের!

ছোট্ট একটি অ্যাকুরিয়াম ঘরে রাখুন, আর বন্ধুত্ব গড়ে তুলুন প্রকৃতির অপার সৌন্দর্য এই ছোট প্রাণীগুলোর সঙ্গে।

আপনি অ্যাকুরিয়াম বিভিন্ন মাপের এবং ডিজাইনের করে নিতে পারেন। অ্যাকুরিয়ামটি আপনার বাড়ির কোন জায়গাটিতে রাখতে চান সেই জায়গার মাপ অনুযায়ী কিনতে পারেন অথবা বানিয়ে নিতে পারেন। তবে বাজারে স্ট্যান্ডার্ড মাপের অ্যাকুরিয়াম যেকোনো দোকানেই পাবেন।

পছন্দমতো বৈচিত্র্যময় রঙের মাছ রাখুন অ্যাকুরিয়ামে। নিজের ঘরে চলতে ফিরতে যখন প্রাণের আনাগোনা টের পাবেন তখন মন ভরে উঠবে, নিজের ভেতরে প্রাণচাঞ্চল্যতা ভরপুর কর্মোদ্যম টের পাবেন।

অ্যাকুরিয়ামে রাখার জন্য অনেক রকম মাছ পাওয়া যায়। গোল্ড ফিশ,এ্যাঞ্জেল ফিশ, ডিসকাস, ক্যাটফিশ, টেট্রা ,শার্ক, সিচাইল্ড, অস্কার, বার্ব , গাপ্পি, রেইনবো ফিশ, পাফার ফিশ , সার্ডটেইল, স্ক্যাভেঞ্জার আরও কত মাছ! মজার ব্যাপার হল একেকটা মাছের শত শত প্রজাতি আছে। প্রতিটি ভিন্ন ভিন্ন রঙ এবং আলাদা সৌন্দর্যের। বিক্রেতার সাথে পরামর্শ করে জেনে নিন এক অ্যাকুরিয়ামে একসাথে কোন কোন মাছ থাকতে পারে, তাদের খাদ্যাভ্যাস এবং সাধারণ যত্নাদি।

অ্যাকুরিয়ামের যত্নের জন্য কিছু তথ্য আপনার জানা থাকা দরকার। এ বিষয়ে আপনাকে সাহায্য করবেন মাছ বিক্রেতা নিজেই। কতদিন পরপর পানি পরিবর্তন করতে হবে, পানি পরিবর্তনের সময় কি কি মেডিসিন, ভিটামিন দিতে হবে, লবণ কি পরিমাণ দিতে হবে ইত্যাদি। পরিমাণটা নির্ভর করবে অ্যাকুরিয়ামে পানি এবং মাছের ধারণ ক্ষমতার ওপর। অ্যাকুরিয়ামে অনেক শ্যাওলা জন্মে তাই সাকার মাউথ ক্যাট ফিশ অ্যাকুরিয়ামে রাখলে শ্যাওলা জমে থাকা থেকে মুক্তি পাবেন।

ছোট্ট এই সমুদ্রটি শুধু আপনাকেই নয়, চারপাশের মানুষকেও আনন্দ বিলাবে!

রাজধানীর কাটাবন বা গুলশান ছাড়াও আপনার শহরেই রয়েছে অ্যাকুরিয়ামের দোকান।

কোন মন্তব্য নেই