সুন্দরী হিজড়াকে জামিন করিয়ে দেয়ার নামে অর্থ আদায়
চট্টগ্রাম আদালতের হাজতখানার এএসআই মনি বেগমের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা (ভিডিও)

0
.

কারাগারে আটক থাকাবস্থায় আইনী সহায়তার কথা বলে এক আসামীর কাছ থেকে প্রতারণার মাধ্যমে ২০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগে চট্টগ্রাম আদালতের মহিলা হাজত খানার ইনচার্জ এএসআই মনি বেগমের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

আজ সোমবার বিকালে সুন্দরী হিজড়া (তৃতীয় লিঙ্গ) মাদক মামলার এক আসামী চীফ মেট্রোপলিটন আদালতে ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ ওসমান গণির আদালতে এই অভিযোগ দায়ের করেন।

আদালত অভিযোগ আমলে নিয়ে হাজত খানার দায়িত্বে থাকা ম্যাজিষ্ট্রেট আবু সালেম মোহাম্মদ নোমানকে তদন্তপূর্বক প্রতিবেদন দেয়ার চন্য নির্দেশ দিয়েছে।

অভিযোগকারী সুন্দরী হিজড়ার পক্ষের আইনজীবি রিমন দাশ পাঠক ডট নিউজকে অভিযোগ দায়েরের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, বাদী সুন্দরী হিজড়া পিতা-সুলতান আহমদ গ্রাম গোবিন্দখীল, পটিয়া পৌরসভা।  চলতি বছরের ২৯ জানুয়ারী মাদক (ইয়াবাসহ) মামলায় গ্রেফতার হয়। তার পরিবার জামিন করিয়ে দিতে আমার সাথে কথা বলে। আমি তাদের বলি মাদকে এই মামলায় জামিন পেতে আসামীর অন্তত ৫ মাস সময় লাগবে।

পরে আসামীকে (বর্তমান মামলার বাদী) আদালতে আনা হলে সেখানে মহিলা হাজতখানার ইনচার্জ এএসআই মনি বেগম আসামী সুন্দরী হিজড়াকে বলে এ আইনজীবি (আমি) জীবনেও জামিন করিয়ে দিতে পারবে না।  তোমাকে আমি ৩ মাসের মধ্যে জামিন করিয়ে দেবো।  আমাকে ৮০ হাজার টাকা দাও।  এসব কথা বলে ২০ হাজার টাকা অগ্রিম নিয়ে জামিনের ব্যবস্থা করেনি এএসআই মনি বেগম।  পরে তার কাছ থেকে প্রতারিত হয়ে আসামী সুন্দরী হিজড়ার পরিবার আবার আমার সাথে যোগাযোগ করে তার (সুন্দরীর) জামিনের ব্যবস্থা করতে বলে।  এবং আমি তাকে জামিন করিয়ে দিই।

পরে এসব টাকা ফেরত চাইলে এএসআই মনি বেগম টাকা ফেরত না দিয়ে উল্টো মিথ্যা মামলায় ফাঁসিয়ে দেবে বলে সুন্দরীকে হুমকি দিতে থাকে।

এসব অভিযোগে সুন্দরী হিজড়া আজ আদালতে এএসআই মনির বিরোদ্ধে অভিযোগ দিয়েছে।

 

কোন মন্তব্য নেই