প্রবৃদ্ধির সাথে সামঞ্জস্য রেখে চট্টগ্রাম বন্দরের প্রকল্পসমূহ বাস্তবায়নের দাবী

0
ctgport
চট্টগ্রাম বন্দরের ফাইল ছবি।

প্রবৃদ্ধির সাথে সামঞ্জস্য রেখে চট্টগ্রাম বন্দরের উন্নয়ন প্রকল্পসমূহ দ্রুত বাস্তবায়নের আহবান জানিয়েছেন পোর্ট এন্ড শিপিং বিষয়ক স্ট্যান্ডিং সাব-কমিটির নেতৃবৃন্দ।

রবিবার ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারস্থ চেম্বার কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সভায় এ আহবান জানানো হয়।

চেম্বার পরিচালক ও কমিটির আহবায়ক মাহফুজুল হক শাহ’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় মাহফুজুল হক শাহ বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ভিশন-২০২১ ও ২০৪১ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে।

আরএমজি রপ্তানির ক্ষেত্রে ৫০ বিলিয়ন ডলারের লক্ষ্যমাত্রা ঘোষণা করা হয়েছে। জাতীয় অর্থনৈতিক উন্নয়নের এসব লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করতে হলে চট্টগ্রাম বন্দরের সক্ষমতা বৃদ্ধির কোন বিকল্প নেই। তাই, চট্টগ্রাম বন্দরের সমৃদ্ধি মানে জাতির সমৃদ্ধি। এ বন্দরের মাধ্যমে সমুদ্র পথে আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রমের ৯২ শতাংশ সম্পাদিত হয়।

দেশের ৭ শতাংশ প্রবৃদ্ধি এবং বন্দরের ১৪-১৫ শতাংশ প্রবৃদ্ধির সাথে সামঞ্জস্য রেখে সক্ষমতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা, ইকুইপমেন্ট সংগ্রহ, অপারেশন আধুনিকায়ন ও টার্মিনাল বৃদ্ধির জন্য সরকার কর্তৃক গৃহীত প্রকল্পসমূহ প্রশংসার দাবীদার।

তিনি বলেন-গভীর সমুদ্র বন্দরের বিকল্প হিসেবে এবং দেশের আগামী ৫০ বছরের চাহিদা মেটাতে বে-টার্মিনাল প্রকল্প বাস্তবায়ন অতীব জরুরী। তবে এসব প্রকল্প অগ্রাধিকার ভিত্তিতে এবং নির্দিষ্ট সময়সীমার মধ্যে বাস্তবায়ন করতে হবে।

সভায় পোর্ট এন্ড শিপিং বিষয়ক স্ট্যান্ডিং সাব-কমিটির যুগ্ম আহবায়ক গোলাম সরওয়ার, চিটাগাং এন্টারপ্রাইজ’র মোঃ আবদুল মান্নান সোহেল, বার্থ অপারেটরস শিপহ্যান্ডলিং অপারেটরস ওনার্স এসোসিয়েশন’র ফজলে একরাম চৌধুরী, হুন্দাই ওশ্যান ইন্টারন্যাশনাল’র আতাউল করিম চৌধুরী, বাংলাদেশ শিপিং এজেন্টস এসোসিয়েশন’র চেয়ারম্যান আহসানুল হক চৌধুরী, ওওসিএল’র ক্যাপ্টেন গিয়াসউদ্দিন চৌধুরী, মার্কস বাংলাদেশ লিঃ’র মোঃ সরওয়ার আলম চৌধুরী, মার্স মেরিটাইম সার্ভিসেস’র এমডি ক্যাপ্টেন আলাউদ্দিন আল আজাদ, সেরাচেন ইন্টারন্যাশনাল লিঃ’র সাগর দোভাষ, গ্রীন ইন্টারন্যাশনাল লিঃ’র এ.কে.এম. শামসুজ্জামান (রাসেল) এবং কিং মেরিটাইম সার্ভিসেস’র মোঃ আবু সাঈদ বক্তব্য রাখেন।

কোন মন্তব্য নেই