বঙ্গোপসাগরে ঘূর্ণিঝড় “রোয়ানু” : ৪ নম্বর শতর্কতা সংকেত

0

বঙ্গোপসাগরে অবস্থান নিয়েছে ঘূর্ণিঝড় ‘রোয়ানু’। আর এরই প্রভাবে দেশের চার সমুদ্র বন্দরে চার নম্বর স্থানীয় হুঁশিয়ারি সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগর ও কাছাকাছি এলাকায় অবস্থানরত ঘূর্ণিঝড় ‘রোয়ানু’ ধীরে ধীরে বাংলাদেশের উপকূলের দিকে এগোচ্ছে। বৃহস্পতিবার দুপুর নাগাদ এটি আরও উত্তর-পূর্ব দিকে অগ্রসর হয়ে একই এলাকায় অবস্থান করছে।

বৃহস্পতিবার বিকেলে পতেঙ্গা সমুদ্রসৈকতের ছবি। ছবি : ফোকাস বাংলা
বৃহস্পতিবার বিকেলে পতেঙ্গা সমুদ্রসৈকতের ছবি। ছবি : ফোকাস বাংলা

আবহাওয়া অধিদপ্তর থেকে জানানো হয়, এটি আজ দুপুর ১২টায় মংলা বন্দর থেকে এক হাজার ১৮৫ কিলোমিটার দক্ষিণ পশ্চিমে এবং পায়রা বন্দর থেকে এক হাজার ২১৫ কিলোমিটার দক্ষিণ পশ্চিমে অবস্থান করছিল। এটি আরো ঘণীভূত হয়ে উত্তর-উত্তরপূর্ব দিকে অগ্রসর হতে পারে। এ ছাড়া একই সময়ে চট্টগ্রাম বন্দর থেকে এক হাজার ৩৬৫ কিলোমিটার ও কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে এক হাজার ৩৩৫ কিলোমিটার দক্ষিণ পশ্চিমে অবস্থান করছিল রোয়ানু।

অধিদপ্তর থেকে আরো জানানো হয়, ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৫৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ৬২ কিলোমিটার যা দমকা বা ঝড়োহাওয়ার আকারে ৮৮ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। এ ছাড়া ঢাকা, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের কোথাও কোথাও ভারী থেকে অতি ভারী বর্ষণের আশঙ্কা করে আবহাওয়া বিভাগ জানিয়েছে, এতে পাহাড়ি এলাকায় ভূমিধস হতে পারে।

চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরসমূহকে চার নম্বর স্থানীয় হুঁশিয়ারি সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

উত্তর বঙ্গোপসাগর ও গভীর সাগরে অবস্থানরত সব মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে উপকূলের কাছাকাছি থাকতে বলেছে আবহাওয়া অধিদফতর। যাতে তারা স্বল্প সময়ের নির্দেশে নিরাপদ আশ্রয়ে যেতে পারে। সেই সাথে জেলেদের গভীর সাগরে বিচরণ না করতে বলা হয়েছে।

নিম্নচাপের প্রভাবে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে সাগর উত্তাল। ছবিঃ ফোকাস বাংলা

অতি ভারী বর্ষণ
বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা থেকে আগামী ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, ঢাকা, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অধিকাংশ জায়গায় এবং রাজশাহী ও রংপুর বিভাগের অনেক জায়গায় অস্থায়ী দমকা বা ঝোড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে।

ভারী বর্ষণের এক সতর্কবাণীতে বলা হয়েছে, বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা থেকে পরবর্তী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম, সিলেট ও ঢাকা বিভাগের কোথাও কোথাও ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টি হতে পারে।

অতি ভারী বর্ষণের কারণে চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের পাহাড়ি এলাকার কোথাও কোথাও ভূমিধসের আশঙ্কা রয়েছে বলেও জানিয়েছেন আবহাওয়া অধিদফতর।

সারা দেশে দিন এবং রাতের তাপমাত্রা ১ থেকে ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস কমতে পারে বলেও আবহাওয়ার পূর্বাভাসে জানানো হয়েছে।

গভীর নিম্নচাপের প্রভাবে দেশের বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টি অব্যাহত আছে। বৃহস্পতিবার ভোর ৬টা পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় সবচেয়ে বেশি বৃষ্টি হয়েছে সিলেটে ১১৯ মিলিমিটার।

Advertisements

কোন মন্তব্য নেই

একটি মন্তব্য দিন